প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/১২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


b為8 গল্পগুচ্ছ জায়গাটাতেই সোনার খনির খবর পেয়েছি। কখনও স্পষ্ট যখন চোখোচোখি হয়েছে আমার বিশ্বাস সেটাকে চার চোখের অপঘাত বলে ওর ধারণা হয় নি। একএকদিন হঠাৎ পিছন ফিরে দেখেছি আমার তিরোগমনের দিকে অচিরা তাকিয়ে আছে, ধরা পড়তেই দ্রুত চোখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তথ্যসংগ্রহের কাজে লাগলম। পাটনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার কেমব্রিজের সতীর্থ প্রোফেসর আছেন বঙ্কিম। তাঁকে চিঠি লিখলাম, তোমাদের বেহার সিভিল সাভিসে আছেন এক ভদ্রলোক, নাম ভবতোষ। আমার কোনো বন্ধ, তাঁর মেয়ের জন্যে লোকটিকে উদবাহবন্ধনে জড়াবার দকমে সাহায্য করতে আমাকে অনুরোধ করেছেন। জানতে চাই রাস্তা খোলসা কি না, আর লোকটার মতিগতি কী রকম ? উত্তর এল, পাকা দেয়াল তোলা হয়ে গেছে, রাস্তা বন্ধ। তার পরেও লোকটার মতিগতি সম্ভবন্ধে যদি কৌতুহল থাকে তবে শোনো।—এ দেশে থাকতে আমি যাঁর ছাত্র ছিলম তাঁর নাম নাই জানলে। তিনি পরম পণ্ডিত আর ঋষিতুল্য লোক । তাঁর নাতনিটিকে যদি দেখ তা হলে জানবে সরস্বতী কেবল যে আবির্ভূত হয়েছেন অধ্যাপকের বিদ্যামন্দিরে তা নয়, তিনি দেহ নিয়ে এসেছেন তাঁর কোলে। এমন বধিতে উজ্জল অপরপে সন্দের চেহারা কখনও দেখি নি। ভবতোষ ঢািকল শয়তান তাঁর সবগুলোকে। সবপেজল নদীর মতো বন্ধি তার অগভীর বলেই জল জল করে আর সেই জন্যেই তার বচনের ধারা অনগ’ল। ভুললেন অধ্যাপক, ভুললেন নাতনি। রকমসকম দেখে আমাদের তো হাত নিসপিস করতে থাকত। কিছু বলবার পথ ছিল না— বিবাহের সম্প্রবন্ধ পাকাপাকি, বিলেত গিয়ে সিভিলিয়ান হয়ে আসবে তারই ছিল অপেক্ষা। তারও পাথেয় এবং খরচ জাগিয়েছেন কন্যার পিতা। লোকটার সদির ধাত, একান্ত মনে কামনা করেছিলাম ন্যামোনিয়া হবে। হয় নি। পাস করলে পরীক্ষায়; দেশে ফেরবামারই বিয়ে করলে ইনডিয়া গবমেন্টের উচ্চপদস্থ মরবির মেয়েকে। লোকসমাজে নাতনির লজা বাঁচাবার জন্যে মমাহত অধ্যাপক কোথায় অন্তধান করেছেন জানি নে। অনতিকালের মধ্যে ভবতোষের অপ্রত্যাশিত পদোন্নতির সংবাদ এল । মস্ত একটা বিদায়ভোজের আয়োজন হল। শুনেছি খরচটা দিয়েছে ভবতোষ গোপনে নিজের পকেট থেকে। আমরাও নিজের পকেট থেকেই খরচ দিয়ে গণ্ডা লাগিয়ে ভোজটা দিলম লণ্ডভণ্ড করে। কাগজে কংগ্রেসওয়ালাদের প্রতিই সন্দেহ প্রকাশ করেছিল ভবতোষেরই ইশারায়। আমি জানি এই সৎকাখে ভাগ্নী লগণ্ড ছিল। না । যে নগর। জতো লেগেছিল পলায়মানের পিঠে, সেটা অধ্যাপকেরই এক প্রাক্তন ছাত্রের প্রশস্ত । পায়ের মাপে। পলিস এল গোলমালের অনেক পরে—ইনপেক্টর আমার বন্ধ, লোকটা সহদেয়।’ চিঠিখানা পড়লম, প্রাক্তন ছাত্রটির প্রতি ঈষা হল। DDBB BBB BBD DDDD DDD DD BB BB DD DDS DDD DDD মেয়েকে ভয় করি। বোধ করি চেনা নেই বলেই। অথচ কাজে যোগ দেবার কিছর আগেই কলকাতায় কাটিয়ে এসেছি। সিনেমামগুপথবাতনী বাঙালি মেয়ের নতুনकाय-कब्रा छबिलान टम८ष रङा ऋच्छिठ झरब्राइ-ठाब्रा नन छाठबान्धवौ-थाकर