প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/১২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছোটো গল্প げ為亀 আমাদের ওখানে খেতে যেতে হবে তো।” “কিছু বলতে হবে না দাদ, বাবার জন্যে ওঁর মন লাফালাফি করছে। আমি যে এইমাত্র ওঁকে বলে দিয়েছি দেশকালের মিলনতত্ত্ব তুমি ব্যাখ্যা করবে।” মনে মনে বললাম, বাস রে, কাঁ দণ্টমি।” অধ্যাপক উৎসাহিত হয়ে বলে উঠলেন, “আপনার বঝি টাইম-পেস'এর—” আমি ব্যস্ত হয়ে বলে উঠলাম, “কিছ জানা নেই—বোঝাতে গেলে আপনার ব্যথা সময় নষ্ট হবে।” বন্ধ ব্যগ্ন হয়ে বলে উঠলেন, “এখানে সময়ের অভাব কোথায়। আচ্ছা, এক কাজ করন-না, আজই চলন আমার ওখানে আহার করবেন।” আমি লাফ দিয়ে বলতে যাচ্ছিলাম, এখখনি। অচিরা বলে উঠল, “দাদ, সাধে তোমাকে বলি ছেলেমানষে ? যখন খুশি নেমন্তন করে ফেল, আমি পড়ি মশকিলে । ওঁরা বিলেতের ডিনার-খাইয়ে সব গ্রাসী মানুষ, কেন তোমার নাতনির করবে !" 越 অধ্যাপক ধমক-খাওয়া বালকের মতো বললেন, “আচ্ছা, তবে আর কোন দিন আপনার সবিধে হবে বলন।” o “সাবিধে আমার কালই হতে পারবে কিন্তু অচিরাদেবীকে রসদ নিয়ে বিপন্ন করতে চাই নে। পাহাড়ে পবতে ঘুরি, সঙ্গে রাখি থলি ভরে চিড়ে, ছড়া কয়েক কলা, বিলিতি-বেগন, কাঁচা ছোলার শাক, চিনেবাদাম। আমিই বরঞ্চ সঙ্গে নিয়ে আসব ফলারের আয়োজন। অচিরাদেবী যদি স্বহস্তে দই দিয়ে মেখে দেন লজা পাবে ফিরপোর দোকান।” “দাদ, বিশ্বাস কোরো না এই-সব মুখামটি লোককে। উনি নিশ্চয় পড়েছেন তোমার সেই লেখাটা বাংলা কাগজে, সেই ভিটামিনের গণপ্রচার। তাই তোমাকে খুশি করবার জন্যে শোনালেন চিাড়েকলার ফদ ।” মশকিলে ফেললে। বাংলা কাগজ পড়া তো আমার ঘটেই ওঠে না। অধ্যাপক উৎফুল্ল হয়ে জিগগেসা করলেন, “সেটা পড়েছেন বকি ?” অচিরার চোখের কোণে দেখতে পেলমে একটা হাসি। তাড়াতাড়ি শরে করে निजश्ध, “नछि श्राब्र नाझे नफ़ि ठाळठ किङ्द आटन याग्न ना, किन्छू आनल कथाप्ले হচ্ছে—” o _ আসল কথাটা আর হাতড়ে পাই নে। अघ्रिा नम्ना कटग्न क्षब्रिटम्न निरल, “आनज कथा प्लेन निर्माथ्झउ छाएनन, काज शीन তোমার ওখানে নেমন্তৱ জোটে তা হলে ওঁর পাতে পশুপক্ষী পথাৰরজঙ্গম কিছুই बान बाळब ना । ठाई अङ निथिरुन्ठ भटन बिलिङि-रबलादानब्र नाभकौडॉन कब्रटणन । দাদা, তুমি সবাইকে অত্যন্ত বেশি বিশ্বাস কর, এমন-কি, আমাকেও । সেইজনেই ঠাট্টা করে তোমাকে কিছু বলতে সাহস হয় না।” কথা বলতে বলতে ধীরে ধীরে ওঁদের বাড়ির দিকে এগিয়ে চলেছি এমন সময় चन्निब्रा एठा९ आभारक बाल ठेठेण, “बान, आब्र नग्न-७ऐवाब्र यान बानाग्न क्रिग्न ।” আমি বললাম, “দরজা পৰ্যন্ত এগিয়ে দেব।” অচিরা বললে, “সবনাশ। দরজা পেরলেই আলখাল উচ্ছঙ্খলতা, আমাদের