প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/১৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গল্পগুচ্ছ এই বলে চলতে উদ্যত হল। আবার ফিরে এসে বললে, “আমাকে ভুল বঝবেন না-আজ আমার তাঁর আনন্দ হচ্ছে যে আপনাকে মন্তি দিলাম, তার থেকে আমারও মন্তি। আমার চোখ দিয়ে জল পড়ছে—লকোব না, জল আরও পড়বে। নারীর চোখের জল তাঁরই সমানে যিনি সব বন্ধন কাটিয়ে জয়যাত্রায় বেরিয়েছেন।" দতপদে অচিরা চলে গেল। আমি পদধলি নিয়ে প্রণাম করলম অধ্যাপককে। তিনি আমাকে বকে চেপে ধরে বললেন, “আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি তোমার সামনে কীতির পথ প্রশস্ত।” ছোটো গল্প ফরল। পরেকার কথাটা খনি-খোঁড়ার ব্যাপার নিয়ে। তারও পরে আরও বাকি আছে—সে ইতিহাস নিরতিশয় একলার অভিযান, জনতার মাঝখান দিয়ে দগম পথে রখেদগের স্বার-অভিমুখে। বাড়ি ফিরে গিয়ে যত আমার পল্যান আর নোট আর রেকর্ড উলটে-পালটে নাড়াচাড়া করলাম। দেখলাম, সামনে দিগন্তবিস্তৃত কাজের ক্ষেত্র, তাতেই আমার बश्९ इझैि। সন্ধেবেলায় বারান্দায় এসে বসলাম। খাঁচা ভেঙে গেছে। পাখির পায়ে আটকে রইল ছিন্ন শিকল। সেটা নড়তে চড়তে পায়ে বাজবে। 8. సిO, రిపి অগ্রহায়ণ ১৩৪৬