প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* げや গল্পগুচ্ছ মনে করে লজা পেত। কিন্তু তাঁর ক্ষোভে ছটফট করেছে অভাঁকের মন বিভার অভ্যর্থনা না পেয়ে। দেশের লোকে ওর ছবিকে পাগলামি বলে গণ্য করছে, বিভাও যে মনে মনে তাদেরই সঙ্গে যোগ দিতে পারলে এইটেই ওর কাছে অসহ্য। কেবলই এই কল্পনা ওর মনে জাগে যে, একদিন ও য়রোপে যাবে আর সেখানে যখন জয়ধনি উঠবে তখন বিভাও বসবে জয়মাল্য গাঁথতে । রবিবার সকালবেলা। ব্ৰহ্মমন্দিরে উপাসনা থেকে ফিরে এসেই বিভা দেখতে পেলে অভীক বসে আছে তার ঘরে। বইয়ের পাসেলের ব্রাউন মোড়ক ছিল ঝুড়িতে। সেইটে নিয়ে কালী-কলমে একখানা অাঁচড়কাটা ছবি আকিছিল। বিভা জিজ্ঞাসা করল, “হঠাৎ এখানে যে!” অভৗক বললে, “সংগত কারণ দেখাতে পারি, কিন্তু সেটা হবে গৌণ, মুখ্য কারণটা খালে বললে সেটা হয়তো সংগত হবে না। আর যাই হোক, সন্দেহ কোরো না যে চুরি করতে এসেছি।” বিভা তার ডেকের চৌকিতে গিয়ে বসল ; বললে, “দরকার যদি হয় নাহয় চুরি করলে, পলিসে খবর দেব না।” অভীক বললে, “দরকারের হাঁ-করা মুখের সামনে তো নিত্যই আছি। পরের ধন হরণ করা অনেক ক্ষেত্রেই পণ্যেকম, পারি নে পাছে অপবাদটা দাগা দেয় পবিত্র নাস্তিক মতকে। ধামিকদের চেয়ে আমাদের অনেক বেশি সাবধানে চলতে আমাদের নেতি দেবতার ইতজত বাঁচাতে।” . “অনেক ক্ষণ তুমি বসে আছ ?” ∎ኳ “তা আছি, বসে বসে সাইকলজির একটা দুঃসাধ্য প্ররেম মনে মনে মাড়াচাড়া করছি যে তুমি পড়াশুনো করেছ, আর বাইরে থেকে দেখে মনে হয় বধিসন্ধিও কিছ আছে, তব ভগবানকে বিশ্বাস কর কী করে। এখনও সমাধান করতে পারি নি। বোধ হয় বার বার তোমার এই ঘরে এসে এই রিসচের কাজটা আমাকে সম্পণে করে নিতে হবে।” “আবার বুঝি আমার ধমকে নিয়ে লাগলে ?” “তার কারণ তোমার ধম যে আমাকে নিয়ে লেগেছে। আমাদের মধ্যে যে বিচ্ছেদ ঘটিয়েছে সেটা মমঘাতী। সে আমি ক্ষমা করতে পারি নে। তুমি আমাকে বিয়ে করতে পার না, যেহেতু তুমি যাকে বিশ্বাস কর আমি তাকে করি নেবন্ধি আছে বলে। কিন্তু তোমাকে বিয়ে করতে আমার তো কোনো বাধা নেই তুমি অবঝের মতো সত্য মিথ্যে যাই বিশ্বাস কর-না কেন। তুমি তো নাস্তিকের জাত মারতে পার না। আমার ধমের শ্রেষ্ঠতা এইখানে। সব দেবতার চেয়ে তুমি আমার কাছে প্রত্যক্ষ সত্য, এ কথা ভুলিয়ে দেবার জন্যে একটি দেবতাও নেই আমার সামনে।” বিভা চুপ করে বসে রইল। খানিক বাদে অভীক বলে উঠল, “তোমার ভগবান কি আমার বাবারই মতো? আমাকে ত্যাজ্যপত্র করেছেন ?” “आई ! कौ शकछ् !” অভীক জানে বিয়ে না করবার শক্ত কারণটা কোনখানে । কথাটা বিভাকে দিয়ে