প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/২১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


●bfや গল্পগুচ্ছ ওস্তাদের নাম রক্ষা করিতে হইবে।” রাজধর বিবণ শাক চিন্তাকুল মুখে চুপ করিয়া দাঁড়াইয়া রহিলেন। ইশা খাঁ আসিয়া কহিলেন, “যুবরাজ, সময় হইয়াছে, ধনকে গ্রহণ করো।" যবেরাজ দেবতার নাম করিয়া ধনকে গ্রহণ করিলেন। প্রায় দুই শত হাত দরে গোটা পাঁচ-ছয় কলাগাছের গড়ি একত্র বধিয়া পথাপিত হইয়াছে। মাঝে একটা কচুর পাতা চোখের মতো করিয়া বসানো আছে। তাহার ঠিক মাঝখানে চোখের তারার আকারে কালো চিহ্ন অঙ্কিত। সেই চিহ্নই লক্ষ্যপথল। দশকেরা অধচন্দ্র আকারে মাঠ ঘেরিয়া দাঁড়াইয়া আছে—যে দিকে লক্ষ্য পথাপিত সে দিকে যাওয়া নিষেধ। যবেরাজ ধনকে বাণ যোজনা করিলেন। লক্ষ সিথর করিলেন। বাণ নিক্ষেপ করিলেন। বাণ লক্ষ্যের উপর দিয়া চলিয়া গেল। ইশা খাঁ তাঁহার গোঁফ-সন্ধে দাড়িসন্ধে মুখ বিকৃত করিলেন, পাকা ভুর কুঞ্চিত করিলেন। কিন্তু কিছু বলিলেন না। ইন্দ্রকুমার বিষন্ন হইয়া এমন ভাব ধারণ করিলেন যেন তাঁহাকেই লজিত করিবার জন্য দাদা ইচ্ছা করিয়া এই কীতিটি করিলেন। অস্থিরভাবে ধনক নাড়িতে নাড়িতে ইশা খাঁকে বলিলেন, "দাদা মন দিলেই সমস্ত পারেন, কিন্তু কিছুতেই মন দেন না।” ইশা খাঁ বিরক্ত হইয়া বলিলেন, “তোমার দাদার বন্ধি আর সকল জায়গাতেই খেলে, কেবল তীরের আগায় খেলে না ; তাহার কারণ, বৃদ্ধি তেমন সক্ষম নয়।" ইন্দ্রকুমার ভারি চটিয়া একটা উত্তর দিতে যাইতেছিলেন। ইশা খাঁ বুঝিতে পারিয়া দ্রত সরিয়া গিয়া রাজধরকে বলিলেন, “কুমার, এবার তুমি লক্ষ্যভেদ করো, মহারাজা দেখনে ৷” রাজধর বলিলেন, “আগে দাদার হউক।” ইশা খাঁ রন্ট হইয়া কহিলেন, “এখন উত্তর করিবার সময় নয়। আমার আদেশ পালন করো ।” রাজধর চটিলেন, কিন্তু কিছু বলিলেন না। ধন্যবাণ তুলিয়া লইলেন। লক্ষ সিথর করিয়া নিক্ষেপ করিলেন। তাঁর মাটিতে বিধি হইল। যবেরাজ রাজধরকে কহিলেন, “তোমার বাণ অনেকটা নিকটে গিয়াছে ; আর-একটু হইলেই লক্ষ্য বিন্ধ হইত।” রাজধর অম্লানবদনে কহিলেন, “লক্ষ্য তো বিন্ধ হইয়াছে, দর হইতে পাট দেখা যাইতেছে না।” যবেরাজ কহিলেন, “না রাজধর, তোমার দটির ভ্রম হইয়াছে, লক্ষ্য বিদ্ধ হয় नाइँ ।” রাজধর কহিলেন, “হা, বিন্ধ হইয়াছে। কাছে গেলেই দেখা যাইবে।” যবেরাজ আর কিছল বলিলেন না। অবশেষে ইশা খাঁর আদেশক্ৰমে ইন্দ্রকুমার নিতান্ত অনিচ্ছাসহকারে ধনক তুলিয়া লইলেন। যবেরাজ তাঁহার কাছে গিয়া কাতরস্বরে কহিলেন, “ভাই, আমি অক্ষম— আমার উপর রাগ করা অন্যায়—তুমি যদি আজ লক্ষ্য ভেদ করিতে না পারো, তবে তোমার প্রস্টলক্ষ্য তাঁর আমার হদয় বিদীণ করিবে ইহা নিশ্চয় জানিয়ো।” लक्रारख्म काँव्रव, शैशव्र ठानाथा श्रव ना ।”