প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


by SO গল্পগুচ্ছ করছিল স্নিগ্ধ কণ্ঠের এই আলাপ শীঘ্ৰ যেন শেষ হয়ে না যায়। দিনের আলো আলান হয়ে এল। সন্ধ্যার প্রথম তারা জবলে উঠেছে শালবনের মাথার উপরে। সাঁওতাল । মেয়েরা জবালানি-কাঠ সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছে ঘরে, দরে থেকে শোনা যাচ্ছে তাদের গান ৷ 蟲 এমন সময় বাইরে থেকে ডাক এল, “দিদি, কোথায় তুমি। অন্ধকার হয়ে এল যে । আজকাল সময় ভালো-নয় ।" “ভালো তো নয়ই দাদ, তাই একজন রক্ষাকতা নিয়ন্ত করেছি।" অধ্যাপক আসতেই তাঁর পায়ের ধলো নিয়ে প্রণাম করলাম। তিনি শশব্যস্ত হয়ে উঠলেন। পরিচয় দিলাম, “আমার নাম নবীনমাধব সেনগুপত।” বন্ধের মুখ উজ্জল হয়ে উঠল। বললেন, “বলেন কী, আপনিই ডাক্তার সেনগুপ্ত ? আপনি তো ছেলেমানষে।” আমি বললাম, "নিতান্ত ছেলেমানষে। আমার বয়স ছত্রিশের বেশি নয়।" আবার অচিরার সেই কলমধরে কঠের হাসি, আমার মনে যেন দনো লয়ের ঝংকারে সেতার বাজিয়ে দিলে। বললে, "দাদর কাছে পৃথিবীর সবাই ছেলেমানযে, আর দাদ হচ্ছেন সকল ছেলেমানষের আগরওয়ালা।” অধ্যাপক বললেন, "আগরওয়ালা ? একটা নতুন শব্দ বাংলায় আমদানি করলে! কোথা থেকে জোটালে ?” “সেই যে তোমার ভালোবাসার মাড়োয়ারি ছাত্র, কুন্দনলাল আগরওয়ালা; আমাকে এনে দিত বোতলে করে আমের চাটনি; আমি তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম আগরওয়ালা কথাটার মানে কী। সে বলেছিল পায়োনিয়র।" অধ্যাপক বললেন, “ডাক্তার সেনগুপ্ত, আপনার সঙ্গে আলাপ হল যদি, আমাদের ওখানে যেতে হবে তো ।” “কিচ্ছ বলতে হবে না দাদ। যাবার জন্যে লাফালাফি করছেন। আমার কাছে শুনেছেন, দেশকালের একজোট তত্ত্ব নিয়ে তুমি ব্যাখ্যা করবে আইনস্টাইনের কাঁধে চড়ে ।” মনে মনে বললাম, সবনাশ! কী দন্টেমি! অধ্যাপক অত্যন্ত উৎসাহিত হয়ে বললেন, “আপনার বঝি “টাইম-স্পেস’-এর—” আমি ব্যস্ত হয়ে বলে উঠলুম, “কিচ্ছ বুঝি নে 'টাইম-পেস এর। আমাকে বোঝাতে গেলে আপনার সময় নষ্ট হবে মাত্র।" | বন্ধ ব্যগ্র হয়ে বলে উঠলেন, “সময়! এখানে সময়ের অভাব কোথায়! আচ্ছা, এক কাজ করন-না, আজকে নাহয় আমাদের ওখানে আহার করবেন— কী বলেন।" আমি লাফ দিয়ে বলতে যাচ্ছিলম এখখনি । অচিরা বলে উঠল, "দাদা, সাধে তোমাকে বলি ছেলেমানবে। যখন-তখন নেমন্তম করে তুমি আমাকে মশকিলে ফেল। এই দণ্ডকারণ্যে ফিরপির দোকান পাব কোথায়। ওঁরা বিলেতের ডিনার-খাইয়ে জাতের সবগ্রাসী মানষে— কেন তোমার নাতনির বদনাম করবে। অন্তত ভেটকিমাছ আর ভেড়ার ব্যবস্থা করতে হবে তো ।” “আচ্ছা আচ্ছা, তা হলে কবে আপনার সবিধে হবে বলনে।” “সাবিধে আমার কালই হতে পারবে। কিন্তু অচিরা দেবীকে বিপন্ন করতে