প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৪৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ কথা tySa নিজনে এতদিন সেই আদশকে আমি পজা করছিলাম সকল আঘাত সকল বণ্টনা সত্ত্বেও। তাকে রক্ষা করতে না পারলে আমার শাচিতা থাকে না।” “আপনি শ্রদ্ধা করতে পারেন ভবতোষকে ?” "וזה" “তার কাছে যেতে পারেন ?” “না। কিন্তু সে আর আমার সেই জীবনের প্রথম ভালোবাসা, এক নয়। এখন আমার কাছে সেই ভালোবাসা ইমপাসোনাল। কোনো আধারের দরকার নেই।” “ভালো বুঝতে পারছি নে।” “আপনি বুঝতে পারবেন না। আপনাদের সম্পদ জ্ঞানের— উচ্চতম শিখরে সে জ্ঞান ইপাসোনাল। মেয়েদের সম্পদ হৃদয়ের, যদি তার সব হারায়—যা-কিছর বাহ্যিক, যা দেখা যায়, ছোঁওয়া যায়, ভোগ করা যায়—তব বাকি থাকে তার সেই ভালোবাসার আদশ যা অবাঙমনসোগোচরঃ অথাৎ ইপাসোনাল।” আমি বললাম, "দেখন, তক করবার সময় আর নেই। এখানকার কাগজে বোধ হয় দেখে থাকবেন, আমার এখানকার কাজ শেষ হয়ে গেছে। অ্যাসিস্টন্ট জিয়লজিস্ট লিখেছেন, এখান থেকে আরও কিছর দরে সন্ধানের কাজ আরম্ভ করতে হবে। "-rgچ؟ "কেন গেলেন না ।” “আপনার কাছ থেকে—" “আমার কাছ থেকে শেষ কথাটা শুনতে চান, প্রথম কথাটা পাবেই আদায় করা হয়েছে!” “झाँ, ठेिक उठाझे ।” "তা হলে কথাটা পরিস্কার করে বলি। আমার ঐ পঞ্চবটীর মধ্যে বসে আপনার অগোচরে কিছুকাল আপনাকে দেখেছি। সমস্ত দিন পরিশ্রম করেছেন, মানেন নি প্রখর রৌদ্রের তাপ। কোনো দরকার হয় নি কারও সঙ্গের। এক-একদিন মনে হয়েছে হতাশ হয়ে গেছেন, যেটা পাবেন নিশ্চিত করেছিলেন সেটা পান নি। কিন্তু তার পরদিন থেকেই আবার অক্লান্ত মনে খোঁড়াখুড়ি চলেছে। বলিষ্ঠ দেহকে বাহন করে বলিষ্ঠ মনের যেন জয়যাত্রা চলছে। এমনতরো বিজ্ঞানের তপস্বী আমি আর কখনও দেখি নি। দরে থেকে ভক্তি করেছি।” "-afarچ تههای " "না, বলি শনেন। আমার সঙ্গে আপনার পরিচয় যতই এগিয়ে চলল, ততই দলবল হল সেই সাধনা। নানা তুচ্ছ উপলক্ষে কাজে বাধা পড়তে লাগল। তখন ভয় হল নিজেকে, এই নারীকে। ছি ছি, কণী পরাজয়ের বিষ এনেছি আমার মধ্যে! এই তো আপনার দিকের কথা, এখন আমার কথাটা বলি। আমারও একটা সাধনা ছিল, সেও তপস্যা। তাতে আমার জীবনকে পবিত্র করবে, উজ্জবল করবে, এ আমি নিশ্চয় জানতুম। দেখলাম কমেই পিছিয়ে যাচ্ছি—যে চাঞ্চল্য আমাকে পেয়ে বসেছিল তার প্রেরণা এই ছায়াচ্ছন্ন বনের নিশবাসের ভিতর থেকে, সে আদিম প্রাণের শক্তির। মাঝে-মাঝে এখানকার রাক্ষসী রাত্রির দ্বারা আবিষ্ট হয়ে মনে হয়েছে, একদিন আমার দাদর কাছ থেকে আমাকে ছিনিয়ে নিতে পারে বুঝি এমন প্রবত্তিরাক্ষস আছে।