প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৭১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


los গলপগুচ্ছ জানলার বাইরে থেকে দেখেছি উনি মাথা গজে লিখছেন, নোট নিচ্ছেন, কলম কামড়ে ধরে ভাবছেন। আমার প্রবেশনিষেধ, পাছে সার আইজাকরে গ্রাভিটেশন বায় নড়ে। সেদিন মা কাকে বলছিলেন উনি ম্যাগনেটিজম নিয়ে কাজ করছেন, তাই পাশ দিয়ে কেউ গেলেই কাঁটা নড়ে যায়, বিশেষত মেয়েরা।” চৌধুরী হো হো করে হেসে উঠলেন ; বললেন, “মা, ল্যাবরেটরি ভিতরেই আছে, ম্যাগনেটিজম নিয়ে কাজ চলছেই, কাঁটা যাঁরা নড়িয়ে দেন তাঁদের ভয় করতেই হয়। দিগভ্ৰম ঘটায় যে। তবে চললাম।” নীলা মাকে বললে, “আমাকে আর কতদিন তোমার আচিলের গঠি দিয়ে বোধে রাখবে। পেরে উঠবে না, কেবল দুঃখ পাবে।” “তুই কী করতে চাস বল ।” নীলা বললে, “তুমি তো জানই মেয়েদের জন্যে একটা হাইয়র স্টাডি মুভমেন্ট খোলা হয়েছে, তুমি তাতে অনেক টাকা দিয়েছ। সেখানে আমাকে কেন কাজে লাগাও-না।” "আমার ভয় আছে পাছে তুই ঠিকমত না চলিস।” “সব চলাই বন্ধ করে দেওয়াই কি ঠিক চলার রাস্তা ?” “তা নয়, তা তো জানি, সেই তো আমার ভাবনা।” “তুমি না ভেবে একবার আমাকে ভাবতে দাও-না। সে তো দিতেই হবে। আমি তো এখন খলকি নই। তুমি ভাবছ সেই-সব পারিক জায়গায় নানা লোকের যাওয়াআসা আছে, সে একটা বিপদ। জগৎসংসারে লোকচলাচল তো বন্ধ হবে না তোমার খাতিরে। আর তাদের সঙ্গে আমার জানাশনো একেবারেই ঠেকিয়ে রাখবে যে, সে আইন তো তোমার হাতে নেই।” “জানি সব জানি, ভয় করে ভয়ের কারণ ঠেকিয়ে রাখতে পারব না। তা হলে তুই ওদের হাইয়র স্টাডি সাকলে ভরতি হতে চাস ?” “शाँ, छाझे।” “আচ্ছা, তাই হবে। সেখানকার পরষ অধ্যাপকদের একে একে দিবি জাহান্নমে সে জানি। কেবল একটি কথা দিতে হবে আমাকে। কোনোমতেই তুই রেবতীর কাছে ঘেষতে পাবি নে। আর, কোনো ছতোতেই ঢাকবি নে তার ল্যাবরেটরিতে।” “মা, তুমি আমাকে কী মনে কর ভেবে পাই নে। কাছে ঘোষতে যাব তোমার ঐ খাদে সার আইজাক নিউটনের, এমন রচি আমার ?—মরে গেলেও না।” সংকোচ বোধ করলে রেবতী শরীরটাকে নিয়ে যে রকম অাঁকুবাঁকু করে তারই নকল করে নীলা বললে, “ঐ স্টাইলের পরিষেকে নিয়ে আমার চলবে না। যে-সব মেয়েরা ভালোবাসে বড়ো খোকাদের মানুষ করতে, ওকে জিইয়ে রেখে দেওয়া ভালো তাদেরই জন্যে। ও মারবার যোগ্য শিকারই নয়।” "একটু বেশি বাড়িয়ে কথা বলছিস নীলা, তাই ভর হচ্ছে ওটা ঠিক তোর মনের কথা নয়। তা হোক, ওর সম্বন্ধে তোর মনের ভাব যাই হোক, ওকে যদি মাটি করতে চাস তা হলে সে তোর পক্ষে ভালো হবে না।” “কখন তোমার কী মজি কিছুই বঝেতে পারি নে মা ! ওর সঙ্গে আমার বিয়ে দেবার জন্যে তুমি আমাকে সাজিয়ে পতুল গড়ে তুলেছিলে, সে কি আমি বৰতে পারি