প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নষ্টনীড় 8ba যে সন্ধ্যাবেলাকে ভূপতি হাস্যে কৌতুকে প্রণয়ে আদরে রমণীয় করিয়া তুলিবে কল্পনা করিয়াছিল সেই সন্ধ্যাবেলা কাটানো তাঁহাদের পক্ষে সমস্যার স্বরপে হইয়া উঠিল। কিছুক্ষণ চেষ্টাপণ মেনের পর ভূপতি মনে করে উঠিয়া যাই –কিন্তু উঠিয়া গেলে চার কী মনে করিবে এই ভাবিয়া উঠিতেও পারে না। বলে, “চার, তাস খেলবে?" চার অন্য কোনো গতি না দেখিয়া বলে, “আচ্ছা।" বলিয়া অনিচ্ছাক্লমে তাস পাড়িয়া আনে, নিতান্ত ভুল করিয়া অনায়াসেই হারিয়া যায়-- সে খেলায় কোনো সােথ থাকে না । * ভূপতি অনেক ভাবিয়া একদিন চারকে জিজ্ঞাসা করিল, “চার, মন্দাকে আনিয়া নিলে হয় না ? তুমি নিতান্ত একলা পড়েছ।” চার মন্দার নাম শুনিয়াই জনলিয়া উঠিল। বলিল, “না, মন্দাকে আমার দরকার নেই।” ভূপতি হাসিল। মনে মনে খুশি হইল। সাধনীরা যেখানে সতীধমের কিছমাত্র ব্যতিক্ৰম দেখে সেখানে ধৈর্য রাখিতে পারে না। বিদ্বেষের প্রথম ধাক্কা সামলাইয়া চার ভাবিল, মন্দা থাকিলে সে হয়তো ভূপতিকে অনেকটা আমোদে রাখিতে পারবে। ভূপতি তাহার নিকট হইতে যে মনের সখ চায় সে তাহা কোনোমতে দিতে পারিতেছে না, ইহা চার অনুভব করিয়া পীড়া বোধ করিতেছিল। ভূপতি জগৎসংসারের আর-সমস্ত ছাড়িয়া একমাত্র চারর নিকট হইতেই তাহার জীবনের সমস্ত আনন্দ আকষণ করিয়া লইতে চেষ্টা করিতেছে, এই একাগ্ন চেন্টা দেখিয়া ও নিজের অন্তরের দৈন্য উপলব্ধি করিয়া চার ভীত হইয়া পড়িয়ছিল। এমন করিয়া কতদিন কিরাপে চলিবে। ভূপতি আর-কিছু অবলম্বন করে না কেন। আর-একটা খবরের কাগজ চালায় না কেন। ভূপতির চিত্তরঞ্জন করিবার অভ্যাস এ পর্যন্ত চারকে কখনও করিতে হয় নাই; ভূপতি তাহার কাছে কোনো সেবা দাবি করে নাই, কোনো সখি প্রার্থনা করে নাই, চারকে সে সবাতোভাবে নিজের প্রয়োজনীয় করিয়া তোলে নাই; আজ হঠাৎ তাহার জীবনের সমস্ত প্রয়োজন চারর নিকট চাহিয়া বসাতে সে কোথাও কিছ যেন খাজিয়া পাইতেছে না। ভূপতির কী চাই, কী হইলে সে তৃপ্ত হয়, তাহা চার ঠিকমত জানে না এবং জানিলেও তাহা চারীর পক্ষে সহজে আয়ত্তগম্য নহে । ভূপতি যদি আপে আপে অগ্রসর হইত তবে চারীর পক্ষে হয়তো এত কঠিন হইত না; কিন্তু হঠাৎ এক রাত্রে দেউলিয়া হইয়া রিক্ত ভিক্ষাপাত্র পাতিয়া বসাতে সে যেন বিব্রত হইয়াছে। : r চার কহিল, "আচ্ছা, মন্দাকে আনিয়ে নাও, সে থাকলে তোমার দেখাশুনোর অনেক সবিধে হতে পারবে।” ভূপতি হাসিয়া কহিল, "আমার দেখাশুনো ! কিছু দরকার নেই।” ভূপতি ক্ষয় হইয়া ভাবিল, আমি বড়ো নীরস লোক, চারকে কিছুতেই আমি সখী করিতে পারিতেছি না।’ uई छविग्ना एम मार्गश्छा लईझा नज़िल । दन्थ:ब्रा कथमस याफ़ि आौनरल यिन्भिक হইয়া দেখিত, ভূপতি টেনিসন, বাইরন, বঙ্কিমের গল্প, এই সমস্ত লইয়া আছে। ভূপতির এই অকাল-কাব্যানরোগ দেখিয়া বন্ধবোধবেরা অত্যন্ত ঠাট্টা-ৰিপে কারস্তে,