প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গান-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


છે જે ૨ গান স্তব্ধনীড়ে নীরব বিহগ, নিস্তরঙ্গ নদীপ্রান্তে অরণ্যের নিবিড় ছায়া । ঝিল্লিমন্ত্রে তন্দ্রাপুর্ণ জলস্তল শূন্যতল, চরাচরে স্বপনের মায়া । নির্জন হৃদয়ে মোর জাগিতেছে সেই মুখ-শশী ॥ একি হরষ হেরি কাননে । পরাণ বিহবল, স্বপন বিজড়িত মোহমদিরাকুল নয়নে ৷ ফুলে ফুলে করিছে কোলাকুলি, বনে বনে বহিছে সমীরণ নব পল্লবে হিল্লোল তুলিয়ে, বসন্ত-পরশে বন শিহরে, কি জানি কোথা পরাণ মন ধাইছে বসন্ত-সমীরণে ॥ সাজাব তোমারে হে ফুল দিয়ে দিয়ে, নানা বরণের বনফুল দিয়ে দিয়ে ॥ আজি বসন্ত-রাতে পূর্ণিমা-চন্দ্র-করে, দক্ষিণ পবনে, প্রিয়ে, সাজাব তোমারে হে ফুল দিয়ে দিয়ে ॥ হায় রে সেই ত বসন্ত ফিরে এল, হৃদয়ের বসন্ত ফুরায় । সব মরুময়, মলয়-অনিল এসে কেঁদে শেষে ফিরে চলে’ যায়