পাতা:ঘর-পোড়া লোক (মধ্যম অংশ) - প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

২৬

দারােগার দপ্তর, ৭৫ম সংখ্যা।


উদরান্নের সংস্থান করিয়া থাকে। নাপিতগণের থাকিবার স্থান সেই সরাইয়ের ভিতর না থাকিলেও, দিনরাত্রি তাহারা সকলেই প্রায় সেই স্থানে অবস্থিতি করে; কিন্তু বার-বনিতাগণ সেই সরাইয়ের ভিতরেই একটা একটী ঘর লইয়া, তাহাতেই অবস্থিতি করিয়া থাকে।

 আসামীদ্বয়ের সহিত প্রহরীগণ যেস্থানে অবস্থান করিল, তাহার পার্শ্ববর্তী অপর আর একটা কামরাতে হোসেন এবং তাহার ভৃত্যদ্বয় স্থান করিয়া লইলেন।

 হোসেন একজন প্রহরীকে কহিলেন, “আসামীদ্বয়কে যদি দুইখানি চারিপায়া আনাইয়া দেওয়া হয়, তাহাতে আপনাদিগের কোনরূপ আপত্তি আছে কি?”

 প্রহরী। আসামী! তাহাতে খুনী মোকদ্দমার আসামী! তাহারা চারিপায়ার উপর উপবেশন বা শয়ন করিবে! একথা ইতিপূর্বে আমরা আর কাহারও নিকট শ্রবণ করি নাই, দর্শন করা ত দূরের কথা!

 হোসেন। আসামীদ্বয়কে চারিপায়ার উপর বসিতে দিবার নিয়ম নাই বলিতেছেন; কিন্তু যদি চারিপায়া দেওয়া যায়, তাহাতে কোনরূপ ক্ষতি আছে কি?

 প্রহরী। ক্ষতি থাক বা না থাক, যদি ইহাদিগকে চারি পায়া দেওয়া যায়, তাহার ভাড়া কে দিবে?

 হোসেন। চারিপায়ার ভাড়া যাহা লাগিবে, তাহা আমি দিব।

 প্রহরী। আর আমাদিগকে?

 হোসেন। ইহার নিমিত্ত আপনাদিগকে কিছু দিতে হইবে কি?

 প্রহরী। না দিলে চারিপায়া দিতে দিব কেন?