পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সম্বন্ধে ভালো মন্দ যাই বলুন স্বীকার করে নিতে পারি। কিন্তু র্যারা না জেনে বা অতি অল্পমাত্রই জেনে এর প্রতি প্রকাশ্য অবজ্ঞাবর্ষণ করতে কুষ্ঠিত হন না, গোপনে এর ক্ষতি করতে যাদের উৎসাহ তাদের সম্বন্ধে আমার ক্ষুব্ধ মনের এই প্রশ্ন কিছুতে শাস্ত হতে চায় না যে, এই কাজে আমার শক্তি প্রায় নিঃশেষে ব্যয় করে আমি তাদের কাছে বা দেশের কাছে কী এমন অপরাধ করেচি । অামি তাদের সাহায্য প্রত্যাশা করিনে কিন্তু আমার পথে বাধা দেবার জন্তে কেন তাদের এই রুচি ? হামাব বয়স সত্তরের কাছে এল— এই বিদ্যালয়ের সকল ভাব দশের উপেক্ষ সত্ত্বে ও প্রাণপণে বহন করতে গিয়েই নিষ্ঠুর উদ্বেগের ক্লাস্তিতে আজ আমাব শরীর অবসন্ন । তবু আপনি জানেন সম্প্রতি আমার তুৰ্ব্বলতাকে অস্বীকার করে পুনবাব এই বিদ্যালয়ের পরিচালনাভার সম্পূর্ণ নিজের পরেই নিয়েছি । মনের মধ্যে এই একটি মাত্র অাশা আছে যে অামাব অস্বাস্থ্যের প্রতি লক্ষা করে আজ আমার দেশের লোক আমার ভার যদি লাঘব না ও করেন তবু ভারবৃদ্ধি করবেন না । ব্যক্তিগতভাবে যত অন্যায় আঘাত আমি সহ করেছি এমন আজকের দিনে আমার দেশের কোনে। খ্যাতিমান লোককেই সহ্য করতে হয় নি । আমি কখনো তাব প্রতিবাদ করিনি । কিন্তু আমার প্রতি অন্ধ অবজ্ঞা বশত আমার কৰ্ম্মকে আঘাত করলে আমাকে মৰ্ম্মাস্তিক দুঃখ দেওয়া হয় । > X >