পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আশা নিয়েই রাশিয়ায় গিয়েছিলুম। গিয়ে যা দেখলুম তাতে বিস্ময়ে অভিভূত golfe I Law and Order fo offixTo রক্ষিত হচ্চে বা না হচ্চে তার তদন্ত করবার যথেষ্ট সময় পাই নি— শোনা যায় যথেষ্ট জবরদস্তি আছে, বিনা বিচারে দ্রুতপদ্ধতিতে শাস্তি সেও চলে, আর সব বিষয়ে স্বাধীনতা আছে কিন্তু কর্তৃপক্ষের বিধানের বিরুদ্ধে নেই । এটা তো হোলো চাদের কলঙ্কের দিক কিন্তু আমার দেখবার প্রধান লক্ষ্য ছিল আলোকের দিক । সে দিকটাতে যে দীপ্তি দেখা গেল সে অতি আশ্চর্য্য— যারা একেবারেই অচল ছিল তারা সচল হয়ে উঠেচে। শোনা যায় যুরোপের কোনো কোনো তীর্থস্থানে দৈবকৃপায় এক মুহূৰ্ত্তে চিরপঙ্গ তার লাঠি ফেলে এসেচে– এখানে তাই হোলো ; দেখতে দেখতে খুড়িয়ে চলবাব লাঠি দিয়ে এরা ছুটে চলবার রথ বানিয়ে নিচ্চে— পদাতিকে ব অধম যারা ছিল তারা বছর দশেকের মধ্যে হয়ে উঠেছে বর্থী । মানলসমাজে তারা মাথা তুলে দাড়িয়েছে, তাদেব বুদ্ধি স্ববশ, তাদের হাত হাতিয়ার স্ববশ । আমাদের সম্রাটবংশীয় খৃষ্টান পাদ্রির বহুকাল ভারতবর্ষে কাটিয়েছেন, ডিফিকাল্টিস যে কি রকম অনড় তা তারা দেখে এসেচেন। একবার তাদের মস্কেী আসা উচিত । কিন্তু এলে বিশেষ ফল হবে না-- কাবণ বিশেষ করে কলঙ্ক দেখাই তাদের বাবসাগত অভ্যাস, তালে। চোখে পড়ে না বিশেষত যাদের উপর বিরাগ আছে । ভুলে যান তাদের শাসনচন্দ্রে ও কলঙ্ক খুজে বের করতে বড়ো চষমার দরকার করে না | প্রায় সত্তর বছর আমার বয়স Y 8 t