পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪১১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ও স্বার্থপর হইলেও সম্পূর্ণ সংকীর্ণমনা নহি। আমার ব্যবসার যদি ক্ষতি হয় ( তাহা নিশ্চিত নহে, যদিও সম্ভবপর ), তাহী হইলেও অন্তকৃত উপকার বুঝিবার ও স্বীকার করিবার ক্ষমতা আমার আছে । আপনি আমার আগেকার চিঠির কোন কোন কথা যদি কাহাকেও বলিয়া থাকেন, তাহা হইলে এই চিঠিখানার সেই সেই বিষয়ক কথা তাহাদিগকে বলিতে ইচ্ছা করিলে বলিবেন, এই অভিলাষ জানাইয়া এবং এত বড় চিঠি দ্বারা আপনার সময় নষ্ট করার জন্য ক্ষমা চাহিয়া পত্র শেষ করিলাম * প্রণত শ্রীরামানন্দ চট্টোপাধ্যায় ১ জুলাই ১৯১৭ ১৬ই অ মোট ১৩৩৮ ভক্তিভাজনেষু, আপনার চিঠির জবাবে যে চিঠি লিখিয়া রাখিয়াছি, তাহাতে লিখিয়াছি, খুতু বাড়া নাই বলিয়া তাহাকে আপনার উল্লিখিত তাহার বিশ্বভারতী বিষয়ক মন্তব্য সম্বন্ধে কোন কথা জিজ্ঞাসা করা হয় নাই । বিকালে সে আফিস হইতে বাড়ী আসার পর তাহাকে জিজ্ঞাসা করিলাম। সে যাহা বলিল, তাহার তাৎপর্য্য দিতেছি :--

  • . .

শত্ৰই পত্রের উপরে লাল কালির বেষ্টনীতে লিখিত রয়েছে : অমিয়বাবুর মারফৎ প্রাপ্ত চিঠির উত্তর । এই চিঠি প্রথমে পাই ।