পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রামালপাকে লিখিত পত্রের প্রসঙ্গ পত্র ১ । ‘প্রদীপ রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়-সম্পাদিত (পৌষ ১৩ • ৪—মাঘ ১৩০৬ ) মাসিক পত্রিকা । ‘প্রদীপ’ সম্পর্কে রবীন্দ্রনাথের এই অভিমত ১৩০৫ সালের আশ্বিন-কার্তিক মাসের যুগ্ম সংখ্যা সম্পর্কে। এই পত্রে উল্লিখিত শিবনাথ শাস্ত্রীর প্রবন্ধ এবং নগেন্দ্র গুপ্তের গল্প ‘হীরার মূল্য’ সম্পর্কে ববীন্দ্রনাথ ভারতী পত্রিকার ‘সাময়িকসাহিতা’ বিভাগে ও ( অগ্রহায়ণ ১৩০৫ পৃ ৭৬৪-৬৫ ) প্রশংসাসূচক মন্তব্য করেন। প্রসঙ্গত বলা যায় আচার্য প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের ‘রাসায়নিক পরিভাষা’ এই সংখ্যার অন্যতম উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধ । পত্র ২ । জার্মান কাগজ গুলির পরিচয় জানা যায় না । প্রবাসী পত্রিকার ‘সংকলন ও সমালোচন’ বিভাগে রবীন্দ্রনাথ বিদেশী পত্র-পত্রিকা থেকে বিভিন্ন বিষয় অতুবাদ করে পাঠাতেন । পত্র ৩ । ইংরেজি পত্ৰখানি । এটি ৪ জানুয়ারি ১৯০৯-এ নিউইয়র্কের আইনজীবী M. H. Phelpsকে লিখিত পত্র । ভারতবর্ষের তৎকালীন সমস্তা কি ছিল এবং তিনি কি ভাবে ভারতকে সাহায্য করতে পারেন জানতে চেয়ে ফেল্পস রবীন্দ্রনাথকে পর দিয়েছিলেন । তদুত্তরে রবীন্দ্রনাথ ভারতের ইতিহাসের ধারা বা?খা করে ভারতের তৎকালীন সমস্তাটি উপস্থাপিত করেন । পত্রটি মডার্ণ রিভিয়ু, অগস্ট ১৯১১-এ মুত্রিত হয় । লক্ষণীয়, এই পত্বটি যে-সময়ে লেখা হয় তখন ও রবীন্দ্রনাথ পাশ্চাত্য জগতে স্ব পরিচিত হন নি । কিন্তু তখনই আমেরিকার এই বিশিষ্ট নাগরিকের সঙ্গে রবীন্দ্রনাথের পত্রালাপ চলেছে । অনুমান করা যায় ইলিনয়ে অধ্যয়নরত রথীন্দ্রনাথের সূত্রে রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে ফেল্পস-এর যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছিল। রথীন্দ্রনাখ & 8 o' ગ ૨.૨૨