পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ጫማ (t ফেব্রুয়ারি > ३२२ কল্যাণীয়াসু ইংরেজের অত্যাচার সহ করতে হবে কিম্বা ভারতবর্ষ কোনদিন স্বাধীন হবার চেষ্টা করবেন। এমন কথা আমি বলিনি । মহাত্মাজি বলেচেন ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের মধ্যেই আমরা থাকব এবং সে রকম থাকবার ইচ্ছা না করা “religiously wrong” অর্থাৎ ধৰ্ম্মবিরুদ্ধ । আমি তা বলি নে । আমি বলি, স্বাধীনতা বাইরের কোন একটা ঘটনার উপর নির্ভর করে না ; দেশের যে অবস্থা ঘটলে স্বাধীনতার মূলপত্তন হয়, স্বাধীনতা সত্য হয় সে অবস্থা ঘটাবার জন্যে চেষ্টা করাই আমাদের বর্তমান কৰ্ত্তব্য। সে অবস্থা চরকা কেটেও হয় না, জেলে গিয়েও হয় না— তার সাধনা তার চেয়েও কঠিন ও বিচিত্র – তাতে শিক্ষার দরকার এবং দীর্ঘকালের তপস্যা চাই । হঠাৎ একটা কিছু করে বসা তপস্যা নয়। যে সব কাজে মনের সমস্ত শক্তির জাগরণ ও দীর্ঘকালের প্রাত্যহিক ত্যাগস্বীকার চাই সে কাজে যখন আমাদের ছেলেদের কোনো উৎসাহ দেখি নে যখন দেখি তারা নিরন্তর তীব্র হৃদয়াবেগের নেশায় মেতে থাকতে চায় “তদা ন সংশে বিজয়ায়, সঞ্জয় ।”— বিশ্বভারতীতে মেয়েদের সকল রকম শিক্ষার ব্যবস্থা হয়েচে– সব বয়সেরই মেয়েরা যোগ দিতে পারে । ইতি ২২ মাঘ ১৩২৮ শুভাতুধ্যায়ী শ্রীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর Y e ol