পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ግ > ২৮ ফেব্রুয়ারি ১৯২২ કેં শিলাইদা নদিয়া কল্যাণীয়াসু তুমি আমাকে ভুল বুঝেচ । দেশ সম্বন্ধে আমাদের কিছুই করবার নেই এ কথা আমি কখনই বলি নে । কিন্তু উন্মত্ত হয়ে কিছু একটা করাই কৰ্ত্তব্য এ আমি মানতে পারি নে। সেই মাতামাতির একটা সুখ আছে তা জানি কিন্তু ফল না থাকতে পারে । এখানে একটা গ্রামে আগুন লেগেছিল । অবশ্য, আগুন লাগলে জল দিয়েই নেবাতে হয়, সকলেই তা জানে, কিন্তু গ্রামে জলাশয় ছিল না । তবু জল জল রবে চেঁচামেচি পড়ে গেল, সেই চিৎকারে আগুন নিৰ্বলনা— এবং লোকে অন্য উপায়ের কথা চিন্তা করতেও ভুলে গেল । একজন বিদেশী লোক ছিল সে বললে যে সব ঘরে আগুন লেগেচে তার চারদিকের ঘরগুলোকে ভেঙে ফেল যাতে আগুন পাড়ায় ছড়িয়ে না পড়ে। গ্রামের লোক এ পরামর্শ শুনতে চাইল না তখন সেই বিদেশী লোক বেত হাতে তাদের জোর করে ঘর ভাঙিয়ে আগুনকে দমন করলে । এখন যেখানে আছি এই ঘটনাটি তার নিকটের পাড়াতেই ঘটেছিল । অন্য ইতিহাসের নকল করে নিজের দেশের ইতিহাস রচনা করা যায় না – মনের আক্ষেপ, উত্তেজনা এবং হাক ডাক > о 2)