পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* > ২৯ মে ১৯২৭ હૈં Uplands Shillong কল্যাণীয়াসু তোমার চিঠি পেয়ে খুসি হলুম। সরসীবাবু কবিতাকে যেদিক থেকে যাচাই করতে চান সেদিক দিয়ে সজীব কবিতার সন্ধান পাওয়া যায় না । বন্ধুকে যদি শরীরতত্ত্বরূপে বিচার করি তবে শরীরতত্ত্ব মিলতেও পারে কিন্তু বন্ধু থাকেন কোথায় ? কবিতার পরিচয় তার রসে, সেটাকে পাই স্বাদের দ্বারা, বিশ্লেষণের দ্বারা নয়। প্রথমে তাল, তার পরে গান, তার পরে গতি, কবিতার এ পর্য্যায়ের কোনো মানেই নেই। সমস্তটা জড়িয়ে ও একটা অখণ্ড জিনিষ । একটা নদী চলচে তাকে আমরা ভাগ ভাগ করে বলতে পারি নে, আগে তার ঢেউ, তার পরে তার জল, তার পরে তার ধারা— ওর একসঙ্গেই সব । আমাদের জীবনের ক্ষেত্র ছোটো, তার উপকরণও সীমাবদ্ধ —সেই ক'টিকে নিয়ে সেইটুকুর মধ্যে একটি মূৰ্ত্তি সাজিয়ে তুলতে হবে । সুখ দুঃখ জিনিষটা চরম জিনিষ নয়, তারা উপাদানমাত্র, তাদের নিয়ে একটি সুসঙ্গতির মধ্যে গুছিয়ে তুলে জীবনটাকে রূপ দিতে হবে। নিজের জীবন রচনায় আমরা আর্টিস্ট । যদি তাকে একটি সুষমা দিতে পারি >及8