পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ē বোলপুর কল্যাণীয়া মা, আমার পক্ষে চিঠি লেখা বড় কঠিন । সময় পাই না— শরীরও অপটু ৷ চিঠি লিখি বা না লিখি তুমি মনকে উদ্বিগ্ন করিয়োনা। আমার এখন সকল কাজ হইতে ছুটি লইবার সময়— এইজন্য যতদূর সম্ভব কৰ্ম্মভার বাড়িতে দিই না । মা তোমার অল্প বয়স— সম্মুখে দীর্ঘ সংসারের পথ– সুখদুঃখের মধ্য দিয়া আনন্দের সহিত অকুষ্ঠিত শক্তির সহিত যাত্র করিয়া চল একদিন শান্তি পাইবে সার্থকতা পাইবে । বারম্বার কেন তুমি নিজের সম্বন্ধে হতাশ হইয়া ধিক্কার দিতেছ ? আমরা কে, যে, তোমাকে দূরে বসিয়া পথ নির্দেশ করিয়া দিব ! তোমার নিজের মধ্যে যে শক্তি আছে তাহার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন কর । আমার শরীর ক্লান্ত আছে বলিয়া তোমাকে আর লিখিতে পারিলাম না । ইতি ১৯শে আষাঢ় ১৩১৮ শুভাকাজক্ষী শ্রীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর