পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কাদম্বিনী দেবীকে লিখিত পত্রগুচ্ছের মধ্যে ইহাই প্রথম, এই অহমানে এটিকে প্রথমে বসানো হইয়াছে । 疇 পত্র ১২। মূল পত্রে তারিখ ১৩১৫ কি ১৩১৬ স্পষ্ট বোঝা যায় না, ১৩১৫ হইতে পারে। পূর্বপত্রে ( ১৩১৬) শান্তিনিকেতন’ গ্রন্থের যেরূপ উল্লেখ আছে তাহাতে এই চিঠিটি ১৩১৬ সালের হইতে পারে, এই অকুমানে ১৩১৬ তারিখ দেওয়া হইয়াছে। পত্র ২২ । ইংরেজি তারিখ ১৭ অক্টোবর স্থলে ২৬ অক্টোবর হইবে । পত্র ২৭ ও ৩১। ইংরেজি তারিখ পোস্টমার্ক হইতে গৃহীত। নিঝরিণী দেবীকে লিখিত পত্রাবলী পত্র ১ । পৃ ১৩৫ ৷ ইহা নিশ্চয় মনে রাখিবে, নিজের, বা পরিবারের বা দেশের কাজে ধৰ্ম্মকে লঙ্ঘন করিলে ঈশ্বর ক্ষমা করেন না।’ পত্র ২ । পৃ ১৩৭ । ‘তুমি যে দুরূহ প্রশ্নের উত্তর জানিতে চাহিয়াছ.। পত্র ৩ । পৃ ১৩৮। ‘এই কথা মনে রেখো, নিজের জন্যেই কি, আর দেশের জন্যেই কি, যা সকলের চেয়ে উচ্চ সত্য তাই একমাত্র সত্য।’ ১৯০৮ সালে মজঃফরপুরে বোমা-নিক্ষেপে দুইজন ইংরেজ মহিলার মৃত্যু ও মানিকতলায় বোমার কারখানা আবিষ্কার প্রসঙ্গ এই পত্রগুলিতে উল্লিখিত । এইসকল ঘটনার পর রবীন্দ্রনাথ ‘পথ ও পাথেয়’ এবং ‘সমস্যা’ প্রবন্ধে ‘ভারতবর্ষের পক্ষে দেশহিত-ব্যাপারটা কি এবং সেই হিতসাধন করিতে হইবে কেমন করিয়া’ এই বিষয় আলোচনা করেন, পত্রে ‘রাজা প্রজা’ গ্রন্থের অন্তর্গত এই দুইটি প্রবন্ধ উল্লিখিত । পত্র ৩ । পৃ ১৩৮। ‘আমিও উপনিষদের কোনো কোনো শ্লোককে এইরূপ আশ্রয়ের মত অবলম্বন করে থাকি।” والصرا لا