পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> X ه ه هد rt به હૈં শিলাইদা” নদিয়৷ কল্যাণীয়াসু উপনিষদে আছে— ঈশাবাস্তমিদং সৰ্ব্বং যৎকিঞ্চজগত্যাং জগৎ অর্থাৎ— জগতে যাহা কিছু আছে সমস্তকেই ঈশ্বরের দ্বারা আবৃত করিয়া জানিবে। আমরা তাহাই করি না বলিয়া সংসার একেবারেই আমাদের মৰ্ম্মস্থানের উপরে চাপিয়া পড়িয়া আমাদিগকে বেদনা দেয় । আমাদের অন্তর বাহির সমস্তই যখন র্তাহার দ্বারা আবৃত বলিয়া জানি তখন মাঝখানে তিনি থাকেন— বোঝা একেবারে আমাদের মাথায় চাপিয়া পড়েনা আঘাত একেবারে আমাদের বুকে আসিয়া বাজে না । সংসারের সমস্ত ঝঙ্কাটের মধ্যেও তাহাকে চারিদিকে আবির্ভূত বলিয়া অনুভব করিবার সাধনা করিলে তাহার সম্মুখে আর সমস্তই মাথা নত করে— যাহা ছোট তাহা ছোট হইয়াই থাকে, যাহা যথার্থ অন্তরের সামগ্ৰী নহে তাহা বাহিরেই পড়িয়া থাকে জগতে যিনি সকলের বড় তিনিই আমাদের জীবনে সকলের চেয়ে বড় স্থান অধিকার করিয়া থাকুন— তাহাকেই সংসারের চেয়ে ছোট করিয়া ফেলি বলিয়া এত দুঃখ পাই । “শান্তিনিকেতন” নামক আমার ধৰ্ম্মোপদেশের বইগুলি ૨ ૨