পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२¢ ৫ মার্চ ১৯১২ હૈં শিলাইদা

  • নদিয়া

কল্যাণীয়াসু যে মনুষ্যলোকে আসিয়াছি সেখানে একটা_প্রবেশাধিকার পাওয়া দরকার। এখান হইতেই ত পাথেয় সঞ্চয় করিতে হইবে। পালা শেষ না করিতে পারিলে ত ছুটি নাই— মনুষ্যত্বের পালাটা, সম্পূর্ণ করিতে হইলে তাহাকে সকল দিকেই পূর্ণ করিয়া যাইতে হইবে । আদ্যকার যুগে পৃথিবীর একটা মস্ত শক্তির ক্ষেত্র যুরোপ– ' সেখানে এমন একটি বিরাটের আবির্ভাব হইয়াছে যাহা সমস্ত জগৎটাকে টলাইতেছে— যাহা বিদ্যুৎকে বাধিতেছে, পৃথিবীকে দোহন করিতেছে, মানুষের চিত্তসমুদ্রকে মন্থন করিতেছে— তাহাকে যদি ভাল করিয়া দেখিয়া ও চিনিয়ানা যাই তবে পৃথিবীর বর্তমান যুগের কাছ হইতে ঠিকমত বিদায় লওয়া হইবে না। কেন তবে আমি এ যুগে জন্মিয়াছিলাম ? কলসি আনিলাম কিন্তু ভরিয়া_ লইবার জন্য ঝরনার ধারে গেলাম না। এখনকার কালে যে ঝরনা ঝরিতেছে তাহার ধারা কি এ জীবনে ব্যর্থ করিতে দিব ? তুমি মনে যে আশঙ্কা করিতেছ এক একবার সে আশঙ্কা আমার মনেও উঠিয়াছে— কিন্তু আবার ভাবি মরিবার দিনে ঘরই কি আর বাহিরই কি— বরঞ্চ ঘরের চেয়ে বাহিরই ভাল— বাধা যেখানে নাই সেইখান হইতেই যাত্রা শুভযাত্রা— বিদায় লইবার 8 82