পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১০২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিত্রাবলি । 罚 “暇 রোজগার করিলে ; কিন্তু বৌয়ের গহন কয়খানা গড়াইয়া দিতে পারিলে না ? কি অবস্থায় কমলার গায়ের গহনাগুলি খুলিয়৷ লইয়াছিলে, একবার মনে করিয়া দেখ দেখি ” বিন্ধাবাসিনীর এই কথাগুলি, যদুপতির হৃদয়ে যেন শেলসম বিদ্ধ হইয়াছিল। বাড়ী হইতে প্রত্যাগমনাবধি যদুপতি প্রায়ই ভাবিতেছিলেন,— “কি করিয়া কমলার গহনাগুলি গড়াইয়া দিতে পারি ” তীব্র উদ্বেগ ! দুৰ্দ্দমনীয় আকাঙ্ক্ষা ! এমন লোকের এমন উদ্বেগ কি দূর হইবে না ? এমন লোকের এমন আকাজ ভগবান কি অপূর্ণ রাখিবেন ? এই সময়, যদুপতির একখানি পুস্তক বিদ্যালয়ের পাঠ্যতালিকাভুক্ত হইল। দেখিতে দেখিতে, খরচ-খরচা-বাদে, ভাদ্র মাসের মাঝামাঝি, যদুপতির হাতে দুই হাজার টাকা নগদ জমিয়া গেল । পুজার যে সব খরচ-পত্ৰ আছে, তাহার ব্যবস্থাবন্দোবস্ত পূর্বেই করা হইয়াছিল। এখন, এই অতিরিক্ত দুই হাজার টাকা হাতে পাইয়া, যদুপতির আর আনন্দের অবধি রহিল না। যদুপতি অবিলম্বে জ্যেষ্ঠ ভগিনীর নিকট পত্র লিখিলেন ; আপাততঃ কমলার জন্ত কি কি গহনা গড়ান হইবে, তদ্বিযয়ে তাহার অভিমত জানিতে চাহিলেন । যথা-সময়ে পত্রের উত্তর আসিল ; বাল, অনন্ত প্রভৃতি মোটা মোট কয়েকখানা গহনার কথা বিন্ধ্যবাসিনী লিখিয়া পাঠাইলেন। পূজার ছুটির পূর্বে যদুপতির হাতে বিদ্যালয়ের অনেকগুলি

  • — .ده

为曾