পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> * भिक्षां । དྷཱ་ཊོ་ # " বিমল –“আচ্ছ, কিসে অমনটা হ’ল ?” অমল —“পেয়াজ-রমুনের গন্ধ ভকভক ক’রে উঠলো! বিমল।—“পেয়াজের গন্ধ তোর এতটা অসহ হ’ল ?” অমল ।–“কখনও তো অভ্যাস নাই ! বাড়ীতে চিরদিনই আলো-চাল আর নিরামিষ পাক খেতাম। হারু দাদার বাসায় এসে মাছটা অভ্যাস হয়েছিল বটে ; কিন্তু তত ইচ্ছের সঙ্গে খেতাম না। এখানে এ কি বিটকেল খাওয়ার পদ্ধতি ” বিমল —“পাচ জনে যা খায়, তাই তো খেতে হ’বে ! এক এক জনের জন্ত তো আর এক একরূপ বন্দোবস্ত হ’তে পারে না!” অমল দীর্ঘনিশ্বাস পরিত্যাগ করিয়া কহিল,-“সইতে সইতে সব সয়ে যাবে!” মনে মনে কহিল,—“যখন এ পথে এসেছি, সওয়াতেই হ’বে ।” বিমল কহিল,—“একটা লেমনেড় থা দেখি ! এখনই সব সেরে যাবে ” - বিমলের নিজের জন্ত একটা লেমনেড আনা ছিল ; তাহার খানিকটা ঢালিয়া সে অমলকে প্রদান করিল। অমল প্রথমে লেমনেড থাইতে অস্বীকার করিল। কিন্তু বিমল বুঝাইল,—“উহাতে মাত্র নেবুর সিরাপ আছে, খেতে কোনও | দোষ নেই। লেমনেড খেলে পেটের জ্বালা-যন্ত্রণা সমস্ত দূর হবে।" অগত্য অমল, বিমলের অনুরোধে, খানিকটা লেমনেড, أيمـــــــــــــــــــــــــــــــةً డి శ్రీ