পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অলঙ্কার । সকলই হইয়াছে; কিন্তু হয় ই-কমলার অলঙ্কারগুলি! তাহাতে যদুপতিরও তত দোষ নাই । কমলাই ইচ্ছা করিয়া যেন সে পক্ষে উদাসীন আছে। গহনার কথা উঠিলে, কমলা এ পর্য্যস্ত কেবলই বলিয়ু আসিয়াছে,—“সে জন্ত ভাবনা কেন ? আগে দেনা পত্র শোধ যাক, আগে বাড়ী-ঘর প্রস্তুত হউক, আগে অন্যান্ত অভাব মোচন করুন ; তার পর , আমার গহনা আমায় দিলেই হইবে।” যদুপতির হৃদয় কি যেন এক নূতন উপাদানে বিগঠিত। বাল্যকালে তিনি বড় কষ্টই পাইয়াছেন। অন্তের সামান্ত কষ্ট দেখিলে, তাই তাহার প্রাণটা অতি কাতর হইয় উঠে। পরের কষ্টমোচনে তিনি যেন সদাই মুক্তহস্ত। আর তজ্জন্ত, তাহার হাত প্রায়ই শূন্ত হয়। নচেৎ, অন্ত প্রকৃতির লোক হইলে, এতদিন কি তিনি স্ত্রীর গহনাগুলি গড়াইয়া দিতে পারিতেন না ? যাহা হউক, এবার তাহার একান্ত বাসন,-কমলার অলঙ্কারগুলি কলিকাতা হইতে গড়াইয়া আনিবেন!—v মহাপূজায় বাড়ী আসিবার সময় গহনাগুলি সঙ্গে আনিয়া কমলাকে নুতন সাজে সাজাইয়া দিবেন। - -