পাতা:তীর্থরেণু.djvu/৪৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
তীর্থরেণু
 

দূরে নৌকায় উদ্ধার মত জ্বলেছিল শুধু
মশাল-আলো;
আজ প্রাতে তাজা রঙের পরশে হরষে ফাটিয়া
পড়িছে মাটি,
ফিরে পতঙ্গ মুকুতা-উজল তৃণদলে পরি’
সোনালি শাটী।

তু-ফু‌।


মহানগর


মহানগর-মহাসাগর, তরঙ্গ তায় কত,
লোকের মেলা, লোকের ঠেলা ঢেউয়ের খেলার মত;
উঠছে ভেসে যাচ্ছে ডুবে, কে কার পানে চায়?
ডুগ্‌ডুগি তার বাজিয়ে বাউল আপন মনে গায়।

যাচ্ছে ভেসে চোখের উপর ডুবছে একে একে,
বিস্মরণের ঘূর্ণি জলে সাধ্য কি যে টেঁকে?
যে মুখখানি এই দেখিলাম,আর সে নাহি, হায়!
ডুগ্‌ডুগি তার বাজিয়ে বাউল আপন মনে গায়।

শ্মশান-মুখো যাচ্ছে কারা?—কান্না গেল শোনা!
বন্ধ তবু হয় না হেথা লোকের আনাগোনা!
ডুব্‌ছ তুমি, ডুব্‌ছি আমি, কে কার পানে চায়?
ডুগ্‌ডুগি তার বাজিয়ে বাউল আপন মনে গায়।

লিলিইয়েঙ্ক্রন্‌।
২২