পাতা:তীর্থরেণু.djvu/৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
তীর্থরেণু
 

মোরা ভুলে থাকি হাসি খুসি,
শুধু, ঠেলাঠেলি ঘুসোঘুসি,
তারা অনাদরে যায় ফিরে,
তখন ভাসি নয়নের নীরে।

নিগ্রো ডান্‌বার।


বানর

একটা বানর বসেছিল সরল গাছের শাথে,
আমি ব’সে ভাবছিলাম ‘সে খায় কি? কোথায় থাকে?’
অলসভাবে ভাব্‌তে এবং চাইতে চাইতে ক্রমে,
কখন চক্ষু পড়্‌ল ঢুলে স্বপ্ন এল জমে।
স্বপ্নে দেখি বছে বানর “ওহে পোষাকধারী!
দেখ্‌ছ? আমার নেইক দর্জ্জি, নেই কোনো দিক্‌দারী,
মাসে মাসে নেই তাগাদা, পরিনে হ্যাট্‌কোট্‌,
নেইক নিত্য সান্ধ্য-সভায় নিমন্ত্রণের চোট।
বেণের ঘরে দিন দুপুরে রসদ কেড়ে খাই,
বেটা তবু বেজায় মোটা, আমি কাহিল, ভাই!
যাইনে কারো গাড়ীর পিছে, ঘরের হোক কি ঠিকে,
দিইনে নজর অন্য কোনো মর্কটের স্ত্রীর দিকে।
খোস্‌ পোষাকী নইকো মোটেই ঢাকিনে গা পর্দ্দায়,
বাংলো-বাড়ী নেইকো আমার ঘুমাই সুখে ফর্দ্দায়;
কিনিনে দস্তানা আংটি, চোখ ঠারিনে মনকে,
সুন্দরীদের জন্য পয়সা দিইনে হ্যামিল্টনকে।

২৪