পাতা:নবীন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১০

নবীন

পারিনে সব অক্ষর কিন্তু চিঠিখান মনের ঠিকানায় এসে পৌছয়। লুকিয়েই ও ধরা দেবে এমনিতরাে ওর ভাবখানা।

সে কি ভাবে গােপন র’বে
লুকিয়ে হৃদয়-কাড়া?
তাহার আসা হাওয়ায় ঢাকা
সে-যে সৃষ্টিছাড়া।
হিয়ায় হিয়ায় জাগলাে বাণী,
পাতায় পাতায় কানাকানি,
“ঐ এলাে যে”, “ঐ এলাে যে”
পরাণ দিল সাড়া॥
এই তো আমার আপনারি এই
ফুল-ফোটানাের মাঝে
তা’রে দেখি নয়ন ভ’রে
নানা রঙের সাজে।
এই-যে পাখীর গানে গানে
চরণ ধ্বনি ব’য়ে আনে,
বিশ্ববীণার তারে তারে
এই তো দিল নাড়া॥

 এইবার বেড়া ভাঙলো, দুর্ব্বার বেগে। অন্ধকারের গুহায় অগােচরে জমে উঠেছিলো বন্যার উপক্রমণিকা, হঠাৎ ঝরনা ছুটে বেরােলাে, পাথর গেল ভেঙে, বাধা গেল ভেসে। চরম যখন আসেন তখন এক পা এক পা পথ গুণে গুণে আসেন না।