প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:নিষ্কৃতি নাটক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


o নিষ্কৃতি প্রথম অঙ্ক সিদ্ধেশ্বরী। ওষুধ টোযুদ্ধ—আর আমি খেতে পারব না শৈল। শৈলজা । ( গম্ভীর হইয়া) তোমাকে বলিনি দিদি, তুমি চুপ কর। আমি হরির কাছে জবাব চেয়েছি, কেন সে ওষুধ দেয় নি— হরি। ( ভীতকণ্ঠে ) মা খেতে চান না যে— শৈলজা। তিনি খেতে চান বা না চান, তুই দিতে গিয়েছিলি কিনা তাই বল ? সিদ্ধেশ্বরী। (বিছানায় উঠিয়া বসিয়া) কেন তুই আবার এখন হাঙ্গামা কবৃতে এলি বলত শৈল ? ওরে ও হরিচরণ ! কী ওষুধ টোমুধ আমাকে দিবি দেন৷ বাবা শীগগির ক’রে । হরিচরণ খাট হইতে ব্যস্তভাবে নামিয়া ঔষধের গেলাস ও শিশি লইয় ছিপি খুলিতে গেল-শৈলজা বাধা দিয়া কহিল। শৈলজা। শুধু গেলাসে ওষুধ ঢেলে দিলেই হোল ? জল চাইনে ? মুখে দেবার কিছু চাইনে ? তোদের একশবার বারণ করেছি না যে, ব্যাগার ঠেলা কাজ তোরা কবি নে। হরি। কোথাও কিছু নেই যে খুড়িমা, মুখে দেবার কী দেবো ? শৈলজা। না আনলে, কিছু কী উড়ে আসবে ? সিদ্ধেশ্বরী। ও কোথায় কী পাবে যে দেবে ? এ সব কি পুরুষ মানুষের কাজ ? তোর যত শাসন ওই ছেলেদের ওপর। কেন নীলাকে ওষুধটা দেওয়ার কথা বলে যেতে পারিস নি ? সে মুখপোড়া মেয়ে, একবারও এ ঘর মাড়ায় না। চেয়ে দেখে না যে, মা মরেছে কি বেঁচে আছে । শৈলজা। তার ওপর তুমি শুধু শুধু রাগ করছ দিদি, সে কি বাড়ীতে ছিল ? সে আমার সঙ্গে পটলডাঙ্গায় আমার মাসিমার বাড়ীতে গিয়েছিল যে !