প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:নিষ্কৃতি নাটক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্থ দৃশু নিষ্কৃতি 桃ヶむ গহনা করি এuামার ! আমি তোমাকে জেলে দিয়ে ছাড়বো তা জানো । i ইতিমধ্যে কানাই ও পটল আসিয়া গিরীশকে গুড়াইঃ ধরিল । আদর করির পটলঙ্কে কোলে তুলিয়া লইয়৷ ওরে আমার পটল মাণিক ! একবার পটল একবার কানাইয়ের দিকে চাহিয়া কহিলেন । হায়, হায়, তায় ! ছেলেপুলেগুলো না খেতে পেয়ে একেবারে কঙ্কাল সার-হ্রয়ে গিয়েছে । ছেলেপুলেগুলোকে মেরে ফেলে তুমি মামলা চালাচ্ছে ? কবে তোর মামলার দিন আছে ? বল—চুপ করে রইলি যে— রমেশ । ( সভয়ে ) কাল— গিরীশ। কাল। তবে আজ যাচ্ছিলি কোথায় , (রমেশ নিরুত্তর বুঝেছি। তদ্বির করার জন্তে ? হু ! এখনো সময় আছে—তোর মামলার রায় আমি এক্ষুনি এখানে দিয়ে উৰে যাবো। হরলাল— এখুনি একবার বিনোদ ঠাকুরদাকে ডাক ? তার সামনে আমি সমস্ত বিষয় বৌমার নামে দানপত্তর করে দিয়ে তবে যাব। হর। আমি এক্ষুনি যাচ্ছি বড়বাবু। এক্ষুনি বাচ্ছি— ব্যস্তভাবে প্রস্থান গিরীশ। বৌমা ! তুমি সব গোছগাছ করে নাও মা । বিনোদ ঠাকুরদাকে ডাকতে পাঠিয়েছি, আজ রাত্রে লেখাপড়াটা সেরে, কাল সকালে দলীল রেজিষ্ট্রি করে দিয়েই তোমাদের সকলকে নিয়ে যাবো । इउडांशः ८षाठ कांग्र-शौहू, ना इग्न ७ग्न या हेरछ उॉई कक्रक, মোটকথা, তোমাদের আৰু এখানে এভাবে ফেলে রাখতে পারবো না । নাও মা, সব গোছগাছ করে রাখ– পটল গিরীশের চিবুকে হাত দিয়া কহিল ।