প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:পণ্ডিতমশাই-শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


লিভীন্ন পরিচ্ছেদ সে দিন কুঞ্জ ভগিনীর কাছে বৃন্দাবনের সাংসারিক পরিচয় দিবার সময় অত্যুক্তি মাত্র করে নাই। সত্যই তাছাদের গৃহে লক্ষ্মী উথলাইয়া পড়িতেছিল ; অথচ সে জন্ত কাহারও অহঙ্কার অভিমান কিছুই ছিল না। এ গ্রামে বিদ্যালয় ছিল না। বৃন্দাবন ছেলে-বেলায় নিজের চেষ্টায় কৃঙ্গ লেখা পড়া শেখে এবং তখন হইতেই একটা পাঠশালা খুলিবার সঙ্কল্প করে। কিন্তু তাহার পিতা গেীরদাস পাকা লোক ছিলেন ; বৃন্দাবন একমাত্র সন্তান ইলেও, এই সব অনাস্থঃ কার্য্যে পুত্রকে প্রশ্রয় দেন নাই। র্তাগর মৃত্যুর পর, সে নিজেদের চণ্ডীমণ্ডপে বিনা-বেতনের একটা পাঠশালা গুলি সদয় কর্ঘ্যে পরিণত করে। পাড়ায় একজন অবসরপ্রাপ্ত প্রাচীন শিক্ষক ছিলেন। ইহাকে সে নিজের ইংরেজী শিক্ষার জন্ত নিযুক্ত করে। তিনি রাত্রে পড়াইয়া যাইতেন ; তাই কথাটা গোপনেই ছিল । গ্রামের কেহই জানিতে পারে, নাই—বেদ বেষ্টন ইংরাজী শিখিয়ছিল। বছর-পাচক পূৰ্ব্বে, . স্ত্রীবিদ্রোগের পর, সে এই লেখাপড়া লইয়াই থাকিত। প্রায় সমস্ত রাত্রি পড়ি ; সকালে গৃহকৰ্ম্ম, বিষয়-আশয় দেখিত এ দুপুর-বেলা স্ব-প্রতিষ্ঠিত পাঠশালে কৃষক-পুত্রদিগের অধ্যাপনা করিত। বিধবা জননী তাহাকে পুনরায় বিবাহের জন্ত পীড়াপীড়ি করিলে, সে তাঙ্গর শিশু পত্রটিকে দেখাইয়া বালুত, যে জন্য বিয়ে করা তা আমাদের আ”ে ; আর ੋਂ নেই মা ! * ম। কান্নাকাটি করিতেন, কিন্তু সে শুনিত না । এমনই করিয়া বছরদুই কাটিল । - z - . i