পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/১২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


У У e পাল ও বর্জিনিয়া। না, সচরাচর কদলীপত্রই তাহদের ভোজনপত্রে হইত এবং শঙ্খাদির গুণত্র তাহীদের পানপাত্র ছিল । শাসনাধিপতি তাহদের গৃহে তাদৃশ দীনভাব দর্শন করিয়া অত্যন্ত চমৎকত হইলেন, এবং যৎসামান্য গ্রাম্য অতিথিসৎকার প্রাপ্ত হইয়া কহিতে লাগিলেন “আমাকে সতত রাজকাৰ্য্য পর্য্যালোচনায় কালহরণ কfরতে হয় বলিয়া কোন অপর কার্য্যে মনোভিনিবেশ করিতে পারি না সত্য বটে, কিন্তু সহস্ৰ কৰ্ম্ম পরিত্যাগ কৰুিয়াও তোমাদের সদৃশ ব্যক্তিদিগের দুরবস্থার প্রতি অন্ততঃ বাটরকের নিমিত্ত ও কটাক্ষপাত করা কর্তব্য । অামি এতাবৎকাল পর্যন্ত ইহ। নিরীক্ষণ না করিয়া কি অনবধানতার কৰ্ম্ম করিয়াছি!” এই কথা বলিয়। ভিনি বিৰি দিলাতুরকে সম্বোধন পূৰ্ব্বক কহিতে লাগিলেন “ভদ্রে! আমি অবগত আছি পেরিস নগরে তোমার এক কুলীন ধনবতী পিতৃম্বস। বর্তমান আছেন । র্তাহার অভিমত এই যে, ভূমি র্তাহার বশবৰ্ত্তিনী হইয়। তন্নিকটে অবস্থিতি কর, অন্তিমকালে তিনি তোমাকে আপনার সমস্ত পনের উত্তরাধিকারিণী করিয়া যাইবেন, এই কথা তিনি আমাকে বলিয়া পাঠাইয়াছেন । ” শাসনাধিপের প্রমুখাৎ এতাদৃশ বাক্য শ্রবণমাত্র বিবি দিলাতুর উত্তর করিলেন, “মহাশয়! আমার এক্ষণে যে প্রকার শারীত্ত্বিক অবস্থা, তাহাতে তত দুর দেশে যাত্রা করা কোন ক্রমেই সম্ভব নহে ’ । ইহাতে শাসনাধিপতি কহিতে লাগিলেন “যদি কোন বিশিষ্ট প্রতিবন্ধক প্রযুক্ত তোমার তথায় যাওয়া না হয়, তবে