পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/১২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


〉ソマ পাল ও বর্জিনিয়া । “এই লও ভদ্রে, এই লও, এই তোমার কনার স্বদেশগমনের পাথেয় প্রেরিত হইয়াচে গ্রহণ কর" । আমি এই উপদ্বীপের শাসনকর্তা রহিয়াছি । আমার নিকট তুমি এর্ত কাল কোন অসংস্থানের কথা জানাও নাই কেন ? যাহাহউক, এতাদৃশ ক্লেশের অবস্থাতেও যে ८डांभाङ्ग अगांभांना खजड1 ७दर भ:मङ्ग छूछडी बलदउँौ রহিয়াছে, এ বড় প্রশংসার বিষয় বলিতে হইবেক ’ । এই সকল কথোপকথন হইতেছে এমত সময়ে পাল কহিয়া উঠিল “জানি গো মহাশয়! আমি আপনাকে ভালরূপে জানি! আমার মা একবার আপনার নিকটে গিয়াছিলেন, আপনি উীহাকে সমাদর ও অভ্যর্থন কিছুই করেন নাই, সে কথা বুঝি ভূলিয়া গিয়াছেন ?” ইহাতে সেই প্রদেশাধিপতি বিবি দিলাতুরকে জিজ্ঞাসিলেন “হঁগে! এটি কাহার কুত্ৰ ? তোমার কি অার এক পুত্র আছে ?” বিবি দিলাতুর উত্তর করিলেন “না মহাশয়! এটি আমার এই প্রিয়সখীর পুত্র, কিন্তু ৰঞ্জিনিয়ার সহিত ইহার কিছুমাত্র ভেদ বোধ করি না। এইটি আমারও সপ্তান বলা যায়” । এই কথা শুনিয়। সেই প্রদেখাধিপভি তখন পালকে সম্বোধন করিয়া কহিলেন “ শুন বৎস! তুমি অতি বালক, তোমার জ্ঞান এক্ষণে পরিপক্ক হয় নাই, কিছু কাল পরে জানিভে পরিবে, ধনী লোকেরা দুরদৃষ্টবশতঃ প্রায়ই এইরূপে সৎকৰ্ম্ম করণে বঞ্চিত হইয়া থাকেন, যে সকল উপকার সাধুশীল সরলস্বভাব ব্যক্তিদিগের প্রতি সতত কৰ্ত্তব্য, তাহ অতি অসৎপাত্র পাপচারী ব্যক্তিতেই অনিচ্ছাধীন ৰিতরণ করিতে হয়” । অনন্তর