পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/১৯০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া । S q > ইয়ত্ত থাকে না । বিশেষতঃ তাহাতে ভঁাহাদেৱ অহঙ্কারেরও উৎপত্তি হয় । ইহার মধ্যে যদি র্ডাহার। দৈবাৎ কখন কিছু কষ্টের মুখ দেখিতে পান, তাহ হইলে উাহাদের সকল বিষয়ের মুখে এককালে জলাগুলি পড়ে। মুরভি কুমুমের <गोशका किछू अcनकক্ষণ মরণ থাকে না, কিন্তু তাহার মধ্যগত সুক্ষ্য কন্টকের অগ্রভাগ যদি অঙ্গের কোন স্থানে বিদ্ধ হয়, তাহ। হইলে তাহার যাতন। ক্ষণকাল মধ্যে বিস্মৃত হওয়৷ অতি সুকঠিন হইয়া পড়ে । এইরূপ বড়মানুষদিগের নিয়ত মুখসম্ভোগের মধ্যে কিঞ্চিৎ অসচ্ছন্দ হইলে তাহা সৌরভময় কুমুমের গর্ভগত কটকের ন্যায় ৰোধ হয় । কিন্তু দুঃখিলোকের পক্ষে এ সমস্তই বিপরীত । তাহার সৌভাগ্যের মুখ প্রায়ই দেখিতে পায় না, সতত কেবল কন্টেতেই কালহরণ করিয়া থাকে । যদি দৈবাৎ সেই ক্লেশের মধ্যে কখন কোন সৌভাগ্যের উদয় হয় তাহ হইলে তাহ অতিরিক্ত প্রতীতি করায় । ফলে তাহাদের সে মুখ ধনীদিগের মুখ হইতে অধিকতর হয় সন্দেহ নাই । আমি তোমার নিকট বড়মানুষ ও দুঃখিলোকের অবস্থার কথা ব্যক্ত করিয়া কহিলাম, এক্ষণে তুমি বিবেচনা কর এ উভয়ের মধ্যে কোনটা ভাল বোধ হয় । বড় মানুষের সততই আপ্তকাম অর্থাৎ পৃথিবীস্থ সমস্ত ভোগ্যবস্তুই তাহাদের হস্তগত থাকে । সুতরাং অjর কোন প্রাপ্তির আশ। থাকে না, কিন্তু হানির ভয় তাহদের মনে সৰ্ব্বদাই জাগরূক থাকে । দরিদ্র লোকদিগের মনে প্রাপ্তিৰু অাশা ৰিলক্ষণ থাকে বটে, কিন্তু তাহীদের হানির ভয়