পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২০৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া। ১ ৯ N2 কিন্তু বাতাস উঠিলে পর তাহারা অবশ্যই লঙ্গর তুলিয়া সমুদ্রে গিয়া থাকিবেক । এইরূপে নানা জনে নানা প্রকার কথা কহিতে লাগিল । সেইসকল অনভিঞ্জ ব্যক্তিদিগের তাদৃশ বাদানুবাদ শ্রবণ করিয়া আমি এবং পাল একেবারে অবাক হইয়া রহিলাম । তখন আর কি করিতে পারি, অরুণোদয় পর্য্যন্ত অমর। সকলেই তথায় বসিয়া রহিলাম ; কিন্তু তখন ষে প্রকার নিবিড় কুকুটিকায় দিজুগুলী আৰুত ছিল, তাহাতে সমুদ্রে জাহাজ দেখিতে পাওয়া ভার । ক্ষণকার্ল পরে দেখিতে গুইলাম কুল হইতে তিন পাদ ক্রোশ দূরে একখান নিবিড় মেঘ উঠিয়াছে । লোকেরা বলিল সেটা মেঘ নয়, অম্বর উপদ্বীপ দেখা যাইতেছে । তখন নভোমণ্ডল এমনি নিবিড় কুলুটিকায় আচ্ছন্ন হইয়াছিল যে, আমরা উপকূলের ষে স্থানে দাড়াইয়াছিলাম সেই স্থান বই আর কিছুই দেখিতে পাওয়া যাইতেছিল না । অনেকক্ষণ এক দৃষ্টিতে দেখিতেই এক এক বার এই উপদ্বীপের মধ্যস্থ পৰ্ব্বতের শৃঙ্গ সকলও দৃষ্ট হইতে লাগিল । বেলা সাতটার সময়ে আমরা শুনিতে পাইলাম বনমধ্যে ক্রমাগত নাগরার শব্দ হইতেছে । ক্ষণকাল পরেই দেখিতে পাইলাম, এই প্রদেশের গবর্ণর মনস্থ্যর দিলাবৰ্দ্দম ই অস্ত্রশস্ত্রধারী বহুসস্থ্যক সেনা ও কতকগুলিন উপদ্বীপবাসী লোক এবং একদল কাঙ্কিলোক সমভিব্যাহারে লইয়া অশ্বারোহণে দ্রুতবেগে সমুদ্রাভিমুখে আসিতেছেন । ক্ষণকালের মধ্যে তথtয় উপস্থিত হইয়া তিনি সেই সেনাগণকে শ্রেণীবদ্ধ করিয়া