পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


wor

  • e ミ পাল ও বর্জিনিয়া ।

ভীষণাকার সমুদ্র মহাবল পরাক্রান্ত তরঙ্গ-বাহুদ্বার। তাহাদিগকে অনেকদূর পর্যন্ত অপসারিত করিয়া ফেলিতে লাগিল। সৰ্ব্বশেষে সেই দয়ালু নাবিকও কুলে নিক্ষিপ্ত হয় । যখন সে স্থলস্পর্শ করে তখন তাহার কিছুমাত্র চৈতন্য ছিল না । ক্ষণকালের পর চেতন পাইয়া, ভূমিতে জানু পাতিয়া এই বলিয়া পরমেশ্বরের নিকট কহিতে লাগিল “হে করুণাময় জগদীশ ! তুমি এখন অপার অনুকম্প প্রকাশ করিয়া অামার জীবন রক্ষা করিলে, কিন্তু এই জীবন দিলেও যদি সেই সুশীলা সরল বালার জীবন রক্ষা পায় তাহ হইলে আমি ইচ্ছাপুৰ্ব্বক ইহার মমতা পরিত্যাগ করিতে প্রস্তুত অাছি ” । ওদিকে যাহা আশঙ্ক! করিতেছিলাম ঘটনাক্রমে তাহাই হইল । এদিকে আমরা পালকে লইয়া মহা সঙ্কটেই পড়িলাম। একে তাহার মুখ ও কাণ দিয়া অনবন্ধত শোণিত-ধারা ৰহিয়া পড়িতেছিল, তাহাতে সে অচৈতন্য ও মৃতপ্রায় হইয়া ভূমিতে পতিত । ইহাতে দমিঙ্গ ও আমি দুজনে তাহাকে তুলিয়া লষ্টয়া সমুদ্রের তীর হইতে চলিয়৷ আইলাম। দয়ালু গৱৰ্ণর দিলাৰৰ্দ্ধমুই পালকে তদবস্থ দেখিয় তাহার চিকিৎসার জন্য এক জন চিকিৎসককে নিযুক্ত করিয়া দিলেন । পালের চিকিৎস! হইতে লাগিল দেখিয়া আমরা দুজন সেই অবকাশে সমুদ্রের ধারে ২ বজ্জিনিয়ার শব ত্মন্বেষিতে লাগিলাম । বাতাসটা এতক্ষণ তীরাভিমুখে আসিতেছিল, কিন্তু দুর্ভাগ্যফ্লমে তাহ তখন সহসা ফিরিয়া দাড়াইল । সুতরাং আমাদের সেই শবের অন্বেষণ করাও সফল হইল না ।