পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২১৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া । * c (t ধৌত করিয়া পরিস্কার করিবার ভার কয়েক জন ইতর জাতীয় স্ত্রীলোকের হস্তে সমর্পণ করিলাদ । তখন তাহার। সেই ব্যাপার সমাধা করিতে লাগিল; আমরা তথা হইতে অতি বিষঃমনে কুটীরের দিকে চলিয়া অভ্যাসিতে - লাগিলাম । আসি য়। দেখিলাম বিবি দিলাতুর ও মার গ্রেট জাহাজের মুসমাচার পাইবার প্রত্যাশায় পরমেশ্বরের নিকট একান্তমনে প্রার্থনা করিতেছেন । বিবি দিলাতুর দূর হইতে আমাকে সমাগত দেখিতে পাইবামাত্র অস্তেব্যস্তে অগ্রসর হইয়া আসিয়া “ মহাশয়! কৈ আমার মেয়ে কৈ, কতদূরে আসতেছে ? বলিয়া বার ২ জিজ্ঞাসিতে লাগিলেন । আমি সে কথায় কোন উত্তর না দিয়া নিস্তব্ধ থাকিলাম । তাহাতে আদেী তাহার মনে বজিনিয়ার অাগ মনের সংবাদ অযথার্থ বলিয়া আশঙ্ক। হইল । পরে অামাকে হুমপ্রপাত করিতে দেখিয়া ঘনহ নিশ্বাস ফেলিতে এবং গোঙ্গাইতে লাগিলেন । তখন আর তাহার মুখ দিয়া একটি কথাও নির্গত হইল না । মার গ্রেট ও অমনি তৎক্ষণাৎ দৌড়িয়া আসিয়া ** কই আমার ছেলে কয় ? অামার ছেলে কোথায় গেল ? অামার ছেলের্কে যে দেখিতে পাইতেছি না, কারণ কি ?’ বলিয়া জিজ্ঞাসিতেহ মুচ্ছ গত হইয়। ভূমিতে পড়িলেন। আমি মুমনি সত্ত্বর হইয়া তাহাকে হস্তে পরিয়া তুলিলাম, এবং ক্ষণখাল বিলম্বে ভ্ৰনি দূর হইলে পর তাহাকে কহিলাস “তোমার ভাবনা নাই, তোমার পাল বঁচিয়া অাছে, এখান লাল ; মর্পরের > ケ