পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬ পাল ও বর্জিনিয়া । নিকট তাহাকে রাখিয়া আসিতেছি”। এই কথ শুনিয়া তিনি কিঞ্চিৎ প্রকৃতিস্থ হইলেন এবং কাদিতেখ বিবি দিলাতুরের শুশ্রষায় তৎপর হইলেন । বিবি দিলাতুর স্বানেকক্ষণপৰ্য্যন্ত মূচ্ছিত ও পতিত রহিলেন। সমস্তরাত্রি তাহার যে প্রকার যাতনা হইতে লাগিল তাহ বর্ণনা দ্বারা ব্যক্ত করা ভার । মাতার চিস্ত কিপৰ্য্যন্ত বলবতী তাহ আমার তখন বিলক্ষণ সপ্রমাণ হইল । যাবৎ তিনি মুচ্ছিতা ছিলেন তাবৎ এক২ বার চৈতন্য হইলেই অমনি পরমেশ্বরের দিকে উৰ্দ্ধে দৃষ্টিপাত করিতে লাগিলেন। মার গ্রেট ও আমি তাহার হাত ধরিয়া বারম্বার সম্মেহ বচনে ডাকিতে লাগিলাম, কিন্তু তাহাতে কোন ফলই দর্শিল না । ফলে তখন যে প্রকার গোঙ্গাইতেছিলেন, তাহাতে তাহার কিছু শুনিবার অথবা শুনিয়া উত্তর দিবার সম্ভাবনা ছিল না । রজনী প্রভাত হইলে গৱর্ণরের লোকের পালকে প#cকীতে করিয়া ঘরে লইয়া আইল । তখন তাহার চেতনা হইয়াছিল বটে, কিন্তু কথা কহিবার শক্তি ছিল ন। তাহার সঙ্গে মার গ্রেট ও বিবি দিলাতুরের সাক্ষাৎ হইবামাত্র যে অদ্ভুত ব্যাপার ঘটনা হইল তাহা অামাদের অাশার অতিরিক্ত ফল। এতক্ষপ আমরা বিবি দিলাতুরের মৃচ্ছ ভঙ্গবিষযে শুশ্রুষাদি দ্বারা কোন উপকার করিতে পারিতেছিলাম না, কিন্তু পালের আসাতে সেই শ্রম সার্থক বোধ হইল । এতক্ষণ পর্যন্ত সেই দুই সখীতে অতলস্পর্শ শোকসাগরে নিমগ্ন ছিলেন, পালের আগমনে তখন তাহা