পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া। ミc > তাহাদের দৃষ্টিপথে পতিত হইবামাত্র সকলকেই মহামোহে জড়ীভূত হইতে হইল। তখন কোথায় বা সেই বালক ৰালিকাগণের গান, কোথায রহিল বা সেই সৈন্যদলের ব্যবস্থান ; সকলেই এমনি নিস্তব্ধ হইল যে তৎকালে কেবল দীর্ঘনিশ্বাস ও কঁপিয়া২ ক্ৰন্দন করা বই আর কিছুই কর্ণগোচর হইল না । সেই সময়ে এই উপদ্বীপের নানাস্তান হইতে দলই কুমারীগণ আসিয়া বর্জিনিয়াকে পুণ্যবতী বোধে আপন২ রুমাল ও মালা দিয় তাহার শবাধান স্পর্শ করিতে লাগিল । বিবাহিত নারীরা পরমেশ্বরের নিকট এই বলিয: প্রার্থনা করিতে লাগিল, যে “হে জগদীশ্বর! আমাদিগকে রুপা করিয়া বর্জিনিয়ার মত এক একটি কনT দিও”। এইরূপে প্রণয়-প্রিয়ের বর্জিনিয়া সদৃশ অকপট প্রণয়িণী পাইবার জন্য, ও যাহারা দীনহীন ব্যক্তি তাহারা তদ্ধপ বন্ধুলাভের হেতু, এবং যাহারা দাসতাবাপন্ন তাহারা ভদ্রপ স্বামিনী পাইবার নিমিত্ত প্ৰ ব্যগ্র হইয় প্রার্থনা করিতে লাগিল । বজ্জিনিয়ার শব সমাধিস্থলে উপনীত হইলে পর, মাদাগাস্কর ও মোজাম্বিয় দ্বীপের কাফু জাতীয় পুরুষের নানা প্রকার ফলপুর্ণ পাত্ৰ অানিয়া সেই শবের চতুর্দিকে সাজাইয়া এবং তাহদের দেশীয় প্রথানুসারে চতুৰ্দ্দিকস্ত ব্লক্ষে বিবিধ জাতীয় ফল মূল বক্স ভবণ প্রভৃতির রচনা সকল ঝুলাইয়। রাখিতে লাগিল । মালাবীর দ্বীপবাসীরা স্বদেশের আচারানুসারে পক্ষিপুর্ণ একই পিঞ্জর আনিয়া তাহাদিগকে শবের নিকটে মোচন করিতে লাগিল । এইরূপে সকল জাতিরাই