পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া । ミソ 。 প্রধান গুণ বটে, কিন্তু সে বঁাচিয় থাকিলে যে তোমাকে মুখী করিতে পারিত তাহ নিশ্চয় বলিতে পারা যায় না, বরং তাহাদ্বারা তোমাকে দুঃখভাগীই হইতে ক্ত ইত । কারণ সে ধনাধিকারিণী হয় নাই, এবং নিজেও ধনবতী ছিল না ; সুতরাং তাহার যত মুখভোগ সকলই তোমার শ্রমসাধ্য হইয়া উঠিত । অপর সে কান্সে প্রধান বলিয়া গণ্য হইতে পারে নাই বলিয়া নিরুৎসাহিনী হইয়াছিল, তাহাতে আবার তোমাকে ও সাহায্য করিতে হইলে তাহার দুৰ্ব্বলতার আর পরিশেষ থাকিত না । তখন কি তুমি তাহার সে সকল ক্লেশ স্বচক্ষে দেখিতে পারিতে ঃ ইহার উপরি যদি তাহার সন্তান হইত, তাহ বিবেচনা করিয়া দেখ । হয় ত ৰুদ্ধ মাতা ও বৰ্দ্ধিষ্ণু পরিবারবর্গের গ্রাসাচ্ছাদন জন্য তোমাকে দিবারাত্র কায়ক্লেশ করিয়া কালযাপন করিতে হইত । এ বিষয়ে তুমি এক কথা কহিতে পার ষে এখানকার গবর্ণর অতি সজ্জন ও দয়াবান, তিনিই তখন তোমাদের সাহায্য করিতেন । ইহাতে আমার উত্তর এই যে, তিনিই যে তোমাদের ক্রমাগত উপকার করিতেন, তাহাই বা তুমি কিরূপে নিশ্চিত জানিলে এতাদুশ নববাসিত প্রদেশের কর্তৃত্ব কিছু ক্রমাগত এক জনের হস্তে থাকে না, মধ্যে২ তাহারা এক স্থান হইতে স্থানান্তরে পরিবর্তিত,হইয়া থাকেন । ভাবে বুঝিতে পারিতেছি তুমি এ কথায় এই ऊँङद्व করিবে, যে যথার্থ মুখের নিমিত্ত ত ধনের প্রয়োজন হয় না । অতএব যাহাকে প্রাণের সহিত ভাল বাস ৷