পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২৩৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Rマ 8 পাল ও বর্জিনিয়া। স্বৰ্গ হইতে দেখিতে পাইত, তাহ হইলে সে এখান হইতে গিয় অবধি সেখানে কেমন ভাবে আছে এবং এখনইবা কি করিতেছে তাহা এই বলিয়া জানাইত যে, "অহে ভাই পাল ! মৰ্ত্ত্যলোকে যে আমাদের জীবন ধারণ করা, সে সকল শোক সন্তাপাদি সহ করিয়া ধৰ্ম্মের পরীক্ষা দিৰার জন্য মাত্র । দেখ আমি যাবৎ পর্য্যন্ত জীবদ্দশায় ছিলাম, তাবৎকাল কেবল ধৰ্ম্মরক্ষায় তৎপর থাকিয়া, মাতার আজ্ঞা পালনার্থ মুদ্রস্তর মহাসাগর পার হইয়াছি এবং প্রচুর ঐশ্বৰ্য্য হস্তগতপ্রায় হইলেও কেবল তোমার জন্য তাহ। পরিত্যাগ করিয়াছি । এক্ষণে সেই সকল সৎকর্মের প্রভাবে আমাকে আর লোকের দীনভাৰ, কাতরত। প্রভৃতি দুঃখ দর্শন করিতে হইতেছে না। . ফলে এখন কোন সাংসারিক ক্লেশই অামার সন্নিহিত হইতে পারিতেছে না। অতএব ভাই। এ অবস্থায় আমার জন্য তোমার কিছুমাত্র দুঃখ করিবার অাৰশ্যক নাই; এখন আমি অনন্ত মুখসচ্ছন্দ সম্ভোগ করত কালহরণ করিতেছি । যে অনন্ত ও অপ্রমেয় মহিমা ” এই চরাচর বিশ্বের মুখের কারণ তাহা এই স্থানেই দেদীপ্যমান । অত্রত মুখের ইতর বিশেষ নাই । ইহা অনাদি অনন্ত এবং পরম । অতএব প্রিয়তম পাল! তোমাকে অনুরোধ করিতেছি তুমি আমার সন্তোষ বৰ্দ্ধনার্থ কিছু দিনের জন্য এতাদৃশ দুঃখ সহ কর । যাহাতে অচিরাৎ তোমার শোকাপনোদন ও নূয়ন-জল বিমোচন হয়, তদ্বিষয়ে আমি বিশেষ যত্নৰতী হইব, ইহাতে তুমি কিছুমাত্র ভাবিত হইও না ।