পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


No e পাল ও বর্জিনিয়া । স্বৰ্গীয় কোন অপসরা জাতি, অথবা অন্য কোন প্রণয়ধন প্রাণী বলিয়া বোধ হইত। যখন তাহারা পরস্পর নিরীক্ষণ ও হাস্য করিত, অথচ মুখে কোন কথাটি কহিত না, তখন দেখিলে পর কাহার না বোপ হইত, যে সামান্য কথা দ্বারা আন্তরিক প্রীতিকে ব্যক্ত করা তাহাদের কদাচ অভিমত নহে । এদিকে বিবি দিলাতুর আপনার মেয়েটির পক্ষে পরে কি ঘটনা হইবেক, এই চিন্তাই দিবানিশি করেন, কিন্তু তদ্বিষয়ে কিছুই স্থির করিতে পারেন না। মধ্যে মধ্যে তিনি এমনও ভাবন করিতেন, যে অামি মরিলে ইহার ভরপ পোষণ কে করিবেক ? না জানি মেয়েট। তখন কত ক্লেশই পাইবে । মনে ২ এই সকল বিষয় আন্দোলন করিতে হ তিনি তখন এককালে উদ্বেগ সমুদ্রে নিমগ্ন হইতেন । কিন্তু কি হইবে, কি উপায় করিতে হইবে, এবং কিসেইব। ভাল হইবে, তাহার বিষয় কিছুই স্তির করিতে পারিতেন না । সুতরাং ক্ষণকাল পরমেশ্বরের নিকট প্রার্থনা করিয়া তা পনা অ পিনিই ক্ষান্ত হইতেন । কান্সদেশে বিৰি দিলাতুরের এক প্রাচীন পিসী তখন পর্যন্ত ও বাচিয় ছিলেন । সেই রদ্ধার যেমন কুলমর্যাদা তেমনি ধন সম্পত্তি, উভয়ই প্রচুররূপ, কিন্তু ভঁাহার এক কুস্বভাব এই ছিল, যে আপনি যেট। ধরিতেন সেইটিই বলৰৎ করিয়া বোপ করিতেন । ভাস্কার সহিত অন্যের মতান্তর হইলে তিনি তাহাকে যাহার পর নাই দ্বেষ করিতেন । সেই বৃদ্ধ হইতেই বিবি দিলাতুরের এত ক্লেশ । ফলে সেই বুদ্ধা তাহার