পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/১৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চাৰ্ব্বাক ও বৌদ্ধ-দর্শন । ১৩৭ ৷ দম, ক্ষত্তি প্রভৃতি ধারা প্রজ্ঞালাভ হইয়া থাকে। স্কুলতঃ, বৌদ্ধগণের মতে,—সকল পদার্থই ক্ষণিক ; সকল পদার্থই ছবিষয় সকল পদার্থই বিসদৃশ, সকল পদার্থই অলীক । “সৰ্ব্বং ক্ষণিকং ক্ষণিকং দুঃখং দু:খং স্বপক্ষপ্তং স্বলক্ষণং শুস্তং শূন্তং ।” gBBD BBBDS gDDD BBBS BBBB DBBB BBBBBS BBBB BBBS BBB BB নিৰ্ব্বাণের হেতুভূত। করুণাদি গুণ-পরম্পরায় বিভূষিত হইয়া যাহার। সংসারের এবদ্বধ নশ্বরত্ব ধারণা করিতে পারেন, তাহারাই নিৰ্ব্বাণ-মুক্তি লাভের অধিকারী হন । প্রায় সমস্ত বৌদ্ধ-দর্শনেরই মূলতত্ত্ব এইরূপ। এই মূগ-তত্ত্ব-বিষয়েই বেদান্তের সহিত বৌদ্ধমতের বিশেষ পার্থক্য দৃষ্ট হয়। বৈদাস্তিকগণের যুক্তি বা নিৰ্ব্বাণে জীবাত্মা-স্বরূপ পরব্রহ্ম নাম-রূপ ইত্যাদি মায়েপিাধি হইতে নিমুক্ত হন । কিন্তু বৌদ্ধ-নিৰ্ব্বাণে সকলই ভৌতিক পদার্থে বিলীন হইয়। যায়। ভৌতিক পদার্থে লীন হওয়াই বৌদ্ধগণের নিৰ্ব্বাণ । নিৰ্ব্বাণ-সম্বন্ধে বৌদ্ধগণের মূল-তত্ত্ব এক হইলেও, বুদ্ধদেবের উপদেশ অভিন্ন হইলেও, বৌদ্ধগণ কিন্তু মান সম্প্রদায়ে বিভক্ত । সৰ্ব্বং ক্ষণিকং’ ইত্যাদি চতুৰ্ব্বিধ ভাবন দ্বারা নিৰ্ব্বাণ লাভ হয়,--সকলেই ইহ। স্বীকার করেন বটে ; কিন্তু তথাপি তাহদের মধ্যে সম্প্রদায়-তেদের ক্রটি নাই। সেই সম্প্রদায়-সমূহের মধ্যে চারিটি সম্প্রদায় বিশেষ প্রসিদ্ধ ;–(১) মাধ্যমিক, (২) যোগাচার, (৩) সোঁত্রান্তিক, এবং (৪) বৈভাষিক । মাধ্যমিকগণ শূন্তবাদী ; ইহা সৰ্ব্বশূন্যত্ব প্রচার করেন। ইহঁাদের মতে,-জ্ঞান ও বিষয় সকলই শূন্ত স্বষ্টির পূৰ্ব্বে আদ্যন্তহীন শূন্তই বিরাজমান ছিল ; শূন্ত অবলম্বনেই বিশ্ব-প্রপঞ্চের স্বষ্টি , আবার শূন্যেই তাহার লয় BBB S BBBBtt BBBB BBB S BBBB BBBS BB BBBB BBB BBBB নাই ; জ্ঞানমাত্রই প্রতাক্ষ ; জ্ঞানের দ্বারাই সৰ্ব্বশূন্তত্ব প্রতিপন্ন হয় । নীল, পীত প্রভৃতির ক্ষণি গুস্তু বিজ্ঞান সাহায্যেই নির্ণীত হইয়া থাকে ; সুতরাং বিজ্ঞানের সত্ত্ব আছে,- বিজ্ঞান ভিন্ন আর সমস্তই অসত্য। সোঁত্রাস্তিকগণ বাহার্ণাঙ্গুমেয়ত্ব স্বীকার করেন। তাহারা বলেন,—‘জ্ঞান প্রত্যক্ষ, বিষয় অনুমেয় । জ্ঞান আত্মাংশে অনুভূত হয়, বাহবস্তু বহিরংশে অম্বভাব্য। সুতরাং জ্ঞান সত্য হইলে বাহবস্তুও অবগুই সত্য হইবে ' বৈভাষিকগণ বাহাৰ্থ-প্রত্যক্ষত্ব স্বীকার করেন। তাহারা বলেন,-"ভানও প্রত্যক্ষ, বিষয়ও প্রত্যক্ষ । আত্মাংশে অবস্থিত বলিয়। জ্ঞান যদি প্রত্যক্ষ হয়, জ্ঞানামুভূত বাহ বস্তুই বা প্রত্যক্ষ°र्राष्ट्रङ्कङ ब्। झहेरब ८कन ?' शाश्। হউক, অন্যাস্থ্য বিষয়ে মতভেদ থাকিলেও, পদার্থের ক্ষণিকত্ব-সম্বন্ধে বৌদ্ধগণের মধ্যে কোনই মতভেদ দৃষ্ট হয় না । দীপশিখা এবং বায়ুচালিত মেঘসমূহ যেমন ক্ষণিক, অথচ সৎ ; বৌদ্ধগণের মতে---পৃথিবীও তদ্রুপ ক্ষণিক ও সৎ । সকলেই এক-মত মান্ত করিয়াছেন, সকলেই এক নিৰ্ব্বাণ-যুক্তির পথে প্রধাবিত হইয়াছেন ; অথচ সকলেরই পরিগৃহীত পন্থ স্বতন্ত্র । সেই স্বতন্ত্রতা-নিবন্ধনই পরবৰ্ত্তি-কালে জৈনদশন প্রকৃতি আরও বিভিন্ন দর্শনের উৎপত্তি হইয়াছে। তত্ত্বৎ বিবরণও যথাস্থানে x আলোচিত হইবে ।