পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/১৬৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্মৃতি। । . دهد দেব-মন্দির প্রতিষ্ঠা, অন্নদান ও বৃক্ষ-প্রতিষ্ঠা প্রভৃতি পূৰ্ব’-কাৰ্য্য। দ্বি-জাতি-ইষ্ট ও পুর্ব উভয় কাৰ্য্যেরই অধিকারী ; শূদ্ৰ-পূৰ্ত্ত-কাৰ্য্য করিবে ; কিন্তু তদন্তৰ্গত বৈদিক-ক্রিয়। করিবে না । এই সংহিতার মতে,–“ব্ৰাহ্মণের ছয়টি কাৰ্য্য। তাহার মধ্যে যজন, দান, অধ্যয়ন – এই তিনটি তপস্তা ; আর প্রতিগ্রহ, অধ্যাপন ও য{জন—এই তিনটা জীবিকা । ক্ষত্রিয়ের পাঁচটি কার্য্য। যজন, দান, অধ্যয়ন—এই তিনটি তপস্যা ; আর অস্ত্র-ব্যবহার S BBSBBS BB BBB BBBS BBBB BB BBS BBBS BBS BDDDSgB তিনটী তপস্যা ; আর, বাৰ্ত্ত ( অর্থাৎ কৃষি, বাণিজ্য, গো-রক্ষ। ) তাহার জীবিক। শূদ্রের দ্ধিজ-সেবাই তপস্ত ; আর, শিল্প-কাৰ্য্যই জীবিকা ৷ অত্রি-সংহিতা-মতে গয়াধামে গমন করিয়া ফন্তু-নদীতে স্নান-পূৰ্ব্বক গদাধরকে দর্শন করিলে, ব্ৰহ্ম-হত্যার পাপ হইতেও মুক্ত হওয়া যায়। গঙ্গামানে অশেষ পুণ্যের কথাও এই সংহিতাতে দৃষ্ট হয়। সহমরণে গিয়া চিত হইতে পতিত হইলে, এই সংহিতায় তাহার প্রায়শ্চিত্ত-বিধি আছে। তন্দ্বারা বুঝা যায়,---ঐ সময় সহমরণ-প্রথা প্রচলিত ছিল । কস্ত-বিক্রয় অতি দোষাবহ বলিয়। অত্রিসংহিতায় উল্লিখিত হইয়াছে । এমন কি, অত্রি-সংহিতার মতে,-ক্রীত কন্যার গর্ভজাত সন্তান পিতৃ-পিঞ্চেরও অধিকারী নহে । তৃতীয়—বিষ্ণু-সংহিতা বিষ্ণুর প্রাধান্ত কীৰ্ত্তিত হইয়াছে বলিয়াই এই সংহিতার নাম বিষ্ণু-সংহিত । মতান্তরে,—স্বয়ং বিষ্ণু এই সংহিতা প্রদান করিয়াছিলেন বলিয়া, ইহার নাম বিষ্ণু-সংহিতা ; অথবা, বিষ্ণু-নামক জনৈক ঋষি কর্তৃক এই বিষ্ণু-সংহিত । সংহিত। প্রচারিত হইয়াছিল বলিয়াই ইহার এইরূপ নামকরণ হইয়াছে। অন্যান্য সংহিতা হইতে এই সংহিতার একটু বিশেষত্ব দৃষ্ট হয় ; সেই বিশেষত্ব,—ইহার কতকাংশ কবিতাচ্ছন্দে লিখিত, কতকাংশ গদ্যে বিরচিত, কতকাংশ স্বত্রাকারে গ্রথিত । স্বত্র-সাহিত্যের যুগে ধৰ্ম্মস্বত্র-সমূহ যে ভাবে গ্রথিত ছিল দেখিয়াছিলাম, এই সংহিতার অধিকাংশই সেইরূপ স্বত্রাকারে অবস্থিত। যেমন,—“ভর্তুঃসমানব্ৰতচারিত্বমূ", “শ্বশ্ৰশ্বশুরে গুরুদেবতাতিথিপূজনম্”, “মুসংস্কৃতোপোস্করত)", ইত্যাদি । ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র এক শতটী অধ্যায়ে এই সংহিতা বিভক্ত । বর্ণাশ্ৰমধৰ্ম্ম, পাতকাদি, উত্তমণ-অধমর্ণের লক্ষণ, লেখ্য অর্থাৎ দলীল, সাক্ষী, অসাক্ষী, শপথ, বিবাহ-বিধি, পুত্র-লক্ষণ, স্ত্রী-ধৰ্ম্ম, সংস্কার, প্রায়শ্চিত্ত, নরক, সদাচার প্রভৃতি বিবিধ বিষয় এই সংহিতায় আলোচিত হইয়াছে । এই সংহিতার প্রথম অধ্যায়ে ক্ষীরোদশায়ী লক্ষ্মী-নারায়ণের সমীপে বস্থমতী আসিয়া বর্ণাশ্রম সনাতন ধৰ্ম্ম জিজ্ঞাসা করিতেছেন। পাশ্চাত্য-পণ্ডিতগণের মতে -এই অধ্যায়টা পরবৰ্ত্তি-কালে রচিত হইয়াছে। দ্বিতীয় অধ্যায়ে ব্রাহ্মণাদি চারি ধৰ্ম্মে কৰ্ম্মবিভাগ, তৃতীয় অধ্যায়ে রাজধৰ্ম্ম-বর্ণন, চতুর্থ অধ্যায়ে মহাপাতকের দ্বওকথা, ** ३३८४ ख2भ अ५) iटघ्न উত্তমণ-অধমণ, দলীল ও সাক্ষী প্রভৃতির বিষয়, নবম হইতে উইদশ অধ্যায়ে দোষী নির্দোষের পরীক্ষা, পঞ্চদশ অধ্যায়ে স্বাদশবিধ পুত্রের উল্লেখ, ষোড়শ শৰীয়ে নানা জাতি উৎপত্তির বিষয়, সপ্তদশ ও অষ্টাদশ অধ্যায়ে বিষয়-গ্রাপ্তির কথা, ইত্যাদি বিষয় লিখিত আছে। পঞ্চবিংশ অধ্যায়ে স্ত্রী-জাতির কৰ্ত্তব্য-নির্ণয়-প্রসঙ্গে