পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/২৩৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রামায়ণ ।। ২২১ কাহারও কোন তয় থাকিবে না ; রাষ্ট্র-নগরসকল ধন-ধান্তে পূর্ণ হুইবে ; তিনি বছ। দত্রে কোটা গো-দান ও সংখ্যাতীত ধেনু-দান করিবেন ; ব্রহ্মণাদি বর্ণ-চতুষ্টয়কে স্বধৰ্ম্মে । নিয়োগ করিয়া, শতগুণে প্রতিষ্ঠ স্থাপন করিবেন " ইত্যাদি। বস্তুতঃ মহর্ষি যে ভবানী কহিয়া গিয়াছিলেন, রাম-রাজত্বে তাহাই সংঘটিত হইয়াছিল। ‘রামরাজত্ব প্রবাদবাক্যে আজিও সে গৌরব দেশে দেশে দিকে দিকে বিঘোষিত। তাহার রাজত্ব-কালে tttBBB BBS B BBBB BBBBS BB BS BBBBBBB BB BBBBS BBBBBBS দায়-পরায়ণ নৃপতি, পৃথিবীতে আর দ্বিতীয় জন্মগ্রহণ করিয়াছিলেন কিম।–সংসার এখনও কমিয়ে সংশয়ান্বিত । শ্রীরামচন্দ্র যে সময়ে রাজ-সিংহাসনে অধিষ্ঠিত হন, তৎকালের । সমারোহ ব্যাপার স্মরণ করিলে, ভারতবর্ষ সেই সময় সভ্যতার কিরূপ উচ্চ-শিখরে সমান্ধ ছিল এবং পৃথিবীতে তিনি কিরূপ একছত্র প্রভাব বিস্তার করিয়াছিলেন,—তাহ GBB BBB BBS BBS BBBBBBSBBBBB BDD BB BB BBB BBBB BBBBB BBBB BBBB BBBBBB BBBB BBBBB BB BBBB BBBB নিৰ্ম্মিত হইয়াছিল ; সকলেরই পদোচিত সম্মানের ও সেবার বিশেষ বন্দোবস্ত বিহিত হইয়াছিল । প্রাতঃকালে সেীমামূৰ্ত্তি বন্দিগণ স্তুতিগানে তাহদের নিদ্রাভঙ্গ করিত। সঙ্গীত-স্বরে জাগরিত হইয় রাজন্তবর্গ নিত্যকার্যে প্ররক হইতেন । অভিষেকের দিন BBBB BBBB BBu BDDBB BBBS BBBBBB BBBBS BBB BBB দান করিয়া, দেবগণের, পিতৃগণের এবং বিপ্ৰগণের যথাবিধি পূক্ত করিয়া, তিনি সভ্যস্থলে উপনীত হইলেন। বসিষ্ট প্রভৃতি পুরোহিতগণ এবং মন্ত্রিবর্গ—সকলেই পূৰ্ব্ব হইতে সভ্যস্থলে উপস্থিত ছিলেন ; লীলাদেশের রাজা ও মহাত্ম! ক্ষত্ৰিয়গণ সভার শোভা-সম্বৰ্দ্ধন করিতেছিলেন । ঋষিগণ, মহাবীৰ্য্যবান রাজগণ, বানরগণ এবং রাক্ষসগণ, সস্থায় সমবেত হইয়া, yBBBBBSBB BBBBS BB BBBB BBBBBBB S BBBBBB BBBB BB BBB BBB হস্তী ও অশ্ব দ্বারা পৃথিবী কম্পিত করিয়া স্বদেশে প্রত্যারত্ত হন । সেই সকল রাজয়বর্গ BBBB BBBBB BBSBBSBBBB BBBS BB BBBBB BBB BBB BBBBB সাহায্যাৰ্থ রাজধানীতে উপস্থিত হইয়াছিলেন ; এবং রামের কল্যাণ-কামনায় বিবিধ রত্ন অশ্ব-যান-মণি-মুক্ত-প্রবালাদি দিব্য আভরণ, রূপবর্তী দাসী এবং বিবিধ বৃথ-সমূহ, ভরত, লক্ষণ ও শত্রুঘ্নকে উপহার দিয়াছিলেন। অভিষেক-সমাপনান্তে, বিধায়-দান কালে, বিধিলেশ্বর জনককে, কেকয়রাঙ্গ-পুত্র মাতুল যুদ্ধাজিতকে, বয়স্ক কাশীরাজ প্রতোনকে এবং অপরাপর রাজগণকে, ঐরামচন্দ্র যে ভাবে সম্বৰ্দ্ধনা করিয়াছিলেন, এবং তাহারা বেঙ্কপ প্রতিসম্বৰ্দ্ধনা জানাইয়াছিলেন,—তদ্বিবরণ উত্তর-কাণ্ডে পরিবর্ণিত আছে। তষ্টে শেপতি সম্রাটের অভিষেক-উৎসবেরই পরিচয় পাওয়া যায়। * প্রজারঞ্জনের জন্ত ইরামচন্দ্র আত্মত্যাগের যে দৃষ্ট্রাপ্ত প্রদর্শন কবিয়া গিয়াছেন, জগতের ইতিহাসে তাহার তুলনা নাই । তিনি গুপ্তচর নিয়োগ করিয়া জাপন সুশাসন-সুপালন-সম্বন্ধে এজার মনোভাব অবগত হইতেন। প্রসঙ্গক্রমে এক দিন তিনি গুপ্তচরকে জিজ্ঞাসা

  • উত্তর-কাও, সপ্তচারিংশ, গষ্টচত্বাৱিংশ এবং একোলপঞ্চাশৰ সঙ্গ।