পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/২৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তখন শল্প-ক্ষেত্ৰ সৰ্ব্বদাই প্রচুর শস্তে পূর্ণ থাকিত ; গবাদির খাদ্য-দ্রব্য প্রচুর উৎপন্ন ইত, দেশের স্বাস্থ্য সুপ্রতিষ্ঠিত ছিল ; গ্রাম-সকল বহুতর দেবালয়, উত্তম পুষ্পোরান ও স্বস্বাছ-ফলযুক্ত বৃক্ষ-শ্রেণীতে স্থশোভিত ছিল ; কাহারও কোনরূপ অভাব ছিল। মাং ধৰ্ম্মাহুগত লোক-সকল স্ত্রী-পুত্রাদি পরিজন লইয়া মুখে জীবন-যাপন করিত – S 0S SSSB BBBBBBBB BB BBB BBB BB BBBS BB B DD DDB BBtt S SM BBBB BBBB BBB B BBBS SS BBB BB BBB B BBBB BBBBBS S DDB BBBBBBB BBB BBB BBS BBBBB BB BB BBBBB BBBS S BBBB BB BB B BBBBB BBBS BBBBB BBB BBB BBB BBDDD DS বহুতর সরোবর এবং প্রত্যেক সরোবরেই পদ্মিনী শোভা পাইত । তৎকালে নদীই উদ্ধত-বেগে চলিত ; কিন্তু কোনও লোক উদ্ধত-ভাবে চলিত না । লোক-সকল কুলীন (সদ্বংশজাত) ছিল ; কাহারও অর্থ কুলীন (চৌরভয়ে ভূগর্ভে নিহিত) ছিল না। রমণীগণেই বিজম (বিলাস ) ছিল ; পণ্ডিতবর্গে কখনই বিভ্রম (ভ্রান্তি ) দেখা যাইত না। মদী-সকল বক্রগামী ছিল ; প্রজাবর্গের মধ্যে কেহই বক্রগামী ছিল না। কৃষ্ণপক্ষের রাত্রিই তমোযুক্ত (অন্ধকারময়) হইত ; কিন্তু মহুয়গণ তমোযুক্ত ছিল না। রমণীরাই কেবল রজেযুক্ত (রজস্বল ) হইত ; কিন্তু ধাৰ্ম্মিক মানব কেহই তখন রজোযুক্ত (রাজসিক ভাবাপন্ন ) ছিল না । মনুষই কেবল ধন-সত্ত্বেও অনন্ধ (অমত্ত ) ছিল ; কিন্তু ভোজন-অনন্ধ (অন্ন-শৃঙ্গ ) ছিল না।’ এবংবিধ সুখ-সম্পং-পূর্ণ রাজ্য স্ত্রীরামচন্দ্র ধৰ্ম্মানুসারে একাদশ সহস্ৰ-বৎসর পালন করিয়াছিলেন। বেদব্যাস-বিরচিত অষ্টান্ত পুরাণের মধ্যে ব্রহ্মাণ্ড-পুরাণান্তর্গত অধ্যাত্ম-রামায়ণে বিশেষভাবে রামচরিত বর্ণিত হইয়াছে। বাল্মীকির রামায়ণের আদিকাণ্ডে পঞ্চদশ সর্গে লিখিত আছে—‘পৃথিবীর ভার লাঘব করিবার জন্য, পদ্মপলাশলোচন ভগবান, ལཱ་ཨཱ་ཨཱ་ চারি অংশে বিভক্ত হইয়া, দশরথের গৃহে জন্মগ্রহণ করেন r प्लेख রামায়ণে এই মাত্র উল্লিখিত হইলেও, বাল্মীকি শ্রীরামচন্দ্রকে আদর্শ মনুষ্ঠরূপেই চিত্ৰিত করিয়া গিয়াছেন। কিন্তু অধ্যাত্ম-রামায়ণ রামচন্দ্রকে প্রধানতঃ পূর্ণ-ব্রহ্মরূপে প্রতিষ্ঠিত করিয়াছেন। এই গ্রন্থের স্কুল ঘটনাবলী বাল্মীকির সহিত অভিন্ন বটে ; কিন্তু পার্থক্য,—প্রধানতঃ পূৰ্ব্বোক্ত বিষয়ে। બફે অধ্যান্থ-রামায়ণে এঁরামের রাজ্যাভিষেক উপলক্ষে মহেশ্বর ও ইন্দ্র প্রমুখ দেবগণ, পিতৃগণ এবং যক্ষ-গন্ধৰ্ব্বগণ স্ত্রীরামচঙ্গের ভব করিতেছেন-দেখিতে পাই। অধিক কি, ‘তুমি ঈশ্বর, তুমি চক্ৰ-সূৰ্য্যারি জম্বুর্গত তেজ, তুমি নিখিল-শরীরগণের চৈতন্য এবং প্রাণিগণের শৌৰ্য-ধৈর্য্য-আয়ু ইত্যাদি । :খ্রিশৰণেও ঐরামচন্দ্রকে বিশেষিত করা হইয়াছে। ঐরামচন্দ্র স্বয়ংও আপনাকে ঈশ্বর বঙ্কিয়া পরিচয় দিতে ক্রটি করেন নাই । তিনি তাহার জননীকে পর্যন্ত বুঝাইতেছেনখাৰৎ শাখাকে সৰ্ব্বভূতে এবং আপনাতে অবস্থিত বলিয়া জানিতে না পরিবে, তাৰং নিত্য স্মরণ করিলে শান্তি লাভ করিবে । এই স্থলে দ্বারs কৗশল্য রামচজকে ঈশ্বর-জ্ঞানে ভক্তি-সহকারে সাইজে প্রধান