পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>8 - ভারতবর্ষ } সন্ধিৎসুগণের অভিমত,--আৰ্য্যগণ উত্তর মেরু হইতে ক্রমশঃ দক্ষিণাভিমুখে অগ্রসর হইয়া, পরিশেষে ভারতে আসিয় উপস্থিত হন । তাহদের এতাদৃশ সিদ্ধান্তের তেতুবাদ,—‘বেদে দীর্ঘকালব্যাপী রাত্রি ও তদনুরূপ দিবাতাগের উক্তি আছে ; শৈত্যাধিক্যের বর্ণনা আছে ; অপিচ, জ্যোতির্গণনা-ক্ৰমেও উত্তর-মেরু বাসযোগ্য ছিল বলিয়া প্রতিপন্ন হইতেছে । * তথায় একাদিক্ৰমে ছয় মাস রাত্রি ও ছয় মাস দিন, তথায় স্বৰ্য্য দক্ষিণ দিকে উদয় হন, তথায় নক্ষত্রগণের উদয়াস্ত নাট,--বেদের কোনও কোনও মস্ত্রের সহিত এই অবস্থার সাদৃশু আছে । অপিচ, শাস্ত্রাদিতে যে ব্রহ্মরাত্রি ও ব্রহ্মদিনের পরিমাণ সাধারণ বর্ষের এক বর্ষ বলিয়া দেখা যায়, উত্তর-মেরু-প্রদেশের ছয় মাস রাত্রি এবং ছয় মাস দিনই সেই ব্ৰহ্মরাত্রি ও ব্রহ্মদিন হওয়া সম্ভবপর ।” অর্য্যেগণের উত্তর-মেরু BBBBBB BBBB BBBB BBBS BBBB BBB S SBB BBBS BBB BBBBB DBBBSBBBBBB BB B SBBBBBS BBBS BBBSBBSBBBBB BBBB ছিল ; সেখানে বৎসরে একবার মাত্র স্বর্যোদয় হইত। পরিশেষে বরফ ও হিমশিলায় সেই প্রদেশ উৎসরপ্রাপ্ত হওয়ায়, অসহ্য শৈত্যাধিক্য-নিবন্ধন, আর্য্যগণ সে স্থান পরিত্যাগ করিয়া দক্ষিণাভিমুখে গমন করেন।” বলা বাহুল্য, আর্যগণের উত্তর-মেরু-বাসসিদ্ধান্তের পরিপোষকগণ, আর্য্যগণের উওর-মেরু পরিত্যাগ-সম্বন্ধে ‘জেন্দ আভেস্তার’ এই উক্তিরই প্রতিধ্বনি করিয়া থাকেন । তৃতীয় আর এক পক্ষ বলেন,—“জৰ্ম্মণীর অন্তর্গত পোলগু-প্রদেশে ( কাহারও মতে স্কাণ্ডেনেভিয়ায় ) আর্য্যদিগের আদি-বাসস্থান ছিল । ভাষাতন্ধের আলোচনায় সংস্কৃতাদির সহিত জৰ্ম্মণ-ভাষার সাদৃশুমুভব করিয়াই তাহার। এই মত পোষণ করিয়া থাকেন । ফলতঃ, আর্য্যগণ ষে কোনও এক অভিনব দেশ হইতে পুথিবীর ভিন্ন ভিন্ন স্থানে বিস্তুত হইয়। পড়িয়াছিলেন, তাহ প্রমাণের জন্যই এ পর্য্যস্ত বহু পণ্ডিতের মস্তিষ্ক আলোড়িত হইয়াছে, এবং তদ্বিষয়ে কেহই জ্ঞান-গবেষণার পরিচয় দিতে ক্রটি করেন নাই । «* কিন্তু প্রকৃত তত্ত্ব কি ? সত্য সভাই আৰ্য্যগণ মধ্য-এসিয়া, উত্তর-মেরু বা জৰ্ম্মণীস্বান্দেনেভিয় প্রভৃতি স্থান হইতেই পৃথিবীর চারিদিকে বিস্তৃত হইয়া পড়িয়াছিলেন,— কি এই ভারতবর্ষেই ঠাহীদের আদি-বাসস্থান ছিল ? আমরা পূৰ্ব্বেই R বলিয়াছি,--সভ্যতার, জ্ঞানের, সকলেরই আদিক্ষেত্র- ভারতবর্ষ । যে বৈদিক মন্ত্র পৃথিবীর আদি-বাণী বলিয়া সকলেই স্বীকার করেন, এবং যে বৈদিক গ্রন্থের পূৰ্ব্বে পৃথিবীতে অন্ত গ্রন্থ প্রচারিত হয় নাই বলিয়া সকলেই মাঙ্গ করিয়। আসিতেছেন ;–সেই বৈদিক মস্ত্রের—বৈদিক গ্রন্থের উৎপত্তিস্থান কোথায় ? কৈ, এ পর্য্যন্ত কেহই তো ভারতবর্ষ ভিন্ন অন্ত দেশে বেদের উৎপত্তি হইয়াছিল বলিয়া প্রমাণ

  • এতদ্দেশীয় প্রত্নতত্ত্বানুসন্ধিৎস্নগণের মধ্যে ষ্ট্ৰীযুক্ত বালগঙ্গাধর তিলক এই মতের প্রধান পরিপোষক । পাশ্চাত্য কয়েক জন পণ্ডিতের সহিত এক-মত হইয়া তিনি এই কথাই আপম গ্রন্থপত্রে প্রচার করিয়াছেন । তাহার প্রণীত oia.or Researches into the Antiquity of the Vedas, or The Arctic Hosie in as Padas গ্রন্থদ্বয়ে এই তৃত্ব প্রমাণের জন্য তিনি বিশেষ প্রয়াস পাইয়াছেদ ।