পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৩৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দৈত্য ও দানবগণ । రిట> ক্ষেত্রে গমন করিয়া পিণ্ডদান করিলে, পূৰ্ব্ব-পুরুষগণ উদ্ধার হন। গয়াধামে গমন করিয়া, কি প্রকারে শ্রাদ্ধ-তৰ্পণাদি সম্পন্ন করিতে হয়, এবং গয়াধামের কোন কোন স্থানে কোন কোন তীর্থ অবস্থিত আছে,-বায়ুপুরাণান্তর্গত গয়া-মাহাষ্ম্যে তাহার পরিচয় পাওয়া যায় । * এক এক মন্বন্তরে আবার এক এক জন অসুরের প্রাধান্তের বিষয়, পুরাণাদি শাস্ত্রে দেখিতে পাওয়া যায়। স্বায়ন্থব মন্বন্তরে, দৈত্য-প্রবর বান্ধলি দেবতাগণকে বিপন্ন করিয়া তুলিয়াছিল। ভগবান বিষ্ণু সুদর্শন চক্র দ্বারা সেই বাস্কলির সংহারসাধন করেন। দ্বিতীয়-স্বারোচিষ মন্বন্তরে, পুরুকৃৎস নামে এক প্রবলপরাক্রান্ত দৈত্য, ইন্দ্রের ইন্দ্রস্ব অপহরণ করিবার প্রয়াস পাইয়াছিল। ভগবান বিষ্ণু হস্তিরূপ ধারণ করিয়া তাহাকে সংহার করেন। তৃতীয়—ঔত্তমি মন্ধস্তরে, প্রলঙ্গ নামে এক দৈত্য ইন্দ্রের শক্র হইয়াছিল ; বিষ্ণু মৎস্য-রূপ ধারণ করিয়া তাঁহাকে বিনাশ্ন । করিয়াছিলেন । চতুর্থ—তামস মন্বন্তরে, ভীমরুথ নামক অসুরের প্রাদুর্তাব হয়। মধুসূদন কূৰ্ম্ম-ৰূপ ধারণ করিয়া তাহার সংহার-সাধন করেন। পঞ্চম-রৈবত মৰন্তরে, শাস্ত নাযা দৈত্য ইন্দ্র ত্ব অধিকারের চেষ্ট পাইয়াছিল । হংস-রূপী বিষ্ণুর হস্তে তাহার পঞ্চত লাভ হয়। ষষ্ঠ-চাফুষ মম্বস্তরে, মহাশাল দৈত্য দেবগণের শক্রতা-সাধন করিয়াছিল ; অশ্ব-রূপী হরি তাহাকে বিনাশ করিয়াছিলেন। সপ্তম—বৈবস্বত মন্বস্তরে, হিরণ্যাক্ষ দৈত্য প্রাদ্ধভূত হয়। ইন্দ্র-রিপু সেই দৈত্যকে বরাহ-রূপী বিষ্ণু সংহার করেন। অষ্টম—সাবর্ণিমন্বন্তরে, সুতপ, অমৃতাভ, মুখ্য প্রভৃতি তা মুরগণের উৎপত্তি হইয়াছিল। ভগবান বিষ্ণু তাহাদিগের সাহার-সাধন করিয়ছিলেন । নবম-দক্ষ-সাবর্ণি মন্বস্তরে, কালকাক্ষ নামক প্রবলপরাক্রমশালী দৈত্যের আবির্ভাব হইয়াছিল। পদ্মনাভ বিষ্ণুর হস্তে তাহার মৃত্যু হয়। দশম মন্বন্তরে, বলি নাম। দৈত্য ইন্দ্রের শক্ৰ তাচরণ করিয়াছিল। ভগবান শ্ৰীহরি গদা-ঘাতে তাহার সংহার-সাধন করেন। একাদশ মন্বন্তরে, দশগ্ৰীব নামে রাক্ষসের প্রাদুর্ভাব হয় । স্ত্রী-রূপী বিষ্ণুর হস্তে তাহার পঞ্চস্ব-লাভ ঘটে । স্বাদশ মন্বন্তরে, তারক নামক দৈত্য দেব-শত্রু হইয়াছিল। নপুংসকরূপী হরি তাহার প্রাণ-বিনাশ করেন । সরোদশ মন্বন্তরে, টিটভ নামক দানব, দেবগণের শক্রতায় প্রবৃত্ত হইয়াছিল। মায়ূৰ্ব-রূপী মাধব তাঙ্গাকে সংহার করিয়াছিলেন । চতুর্দশ মস্বস্তুরে, মহাদৈত্য নামে এক দৈত্যের এহি ভাল হয় । দেবগণু বিত্রত হন । হরি স্বয়ং তাহার প্রাণ-বিনাশ করিয়াছিলেন । f এমন কত যন্ধস্তরে কত দৈত্যেন্ত্রই যে প্রাচুর্ভাব হইয়াছিল, কে তাহার ইয়ত্ত করিতে পারিবে ? প্রধান প্রধান কয়েক জনের বিবরণই সংক্ষেপে পুরাণাদিতে বর্ণিত হইয়াছে। নচেৎ, দৈত্য অসংখ্য, দেবতা অসংখ্য, মানব অসংখ্য, প্রাণি-পৰ্য্যায় অসংখ্য। দৈত্য-দানব সংহারের থষ্ঠ ভগবান বিষ্ণু যে কত রূপ ধারণ করিয়াছিলেন, এবং কত অবতারে এই ভূমণ্ডলে অবতীর্ণ হইয়াছিলেন,–এ সকল বিষয় আলোচনা করিলে, তাহারও সংখ্যা করা যায় না।

  • অগ্নিপুরাণ, ১১৪শ ও ১১৫শ অধ্যায় ; গরুড়পুরাণ, ৮২শ অধ্যায় হইতে ৮৬শ অধ্যায় ; এবং গয়ামাহাত্ম্য ধন্থতি গ্রন্থে গয়াহর ও গয়া-তীর্থের মাহাত্ম্য-প্রসঙ্গ বর্ণিত আছে। । -
  • পক্ষপুরাণ, পূর্ণ-খও, ৮sশ অধ্যায়। -

বিভিন্ন মঞ্চস্তরে বিভিন্ন দৈত্যগণ ।