পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বেদ-চতুষ্টয় । , २१ ছিল। এখনও সেই ভাবেই বেদের অস্তিত্ব বিদ্যমান বহিয়াছে। প্রথমোক্ত তিন কেকে ( ঋগ্বেদ, যজুৰ্ব্বেদ ও সামবেদে ) যজ্ঞবিধির সমাবেশ হওয়ায়, ঐ তিন বেদই পরবর্তি কালে ৰিশেষ প্রতিষ্ঠা লাভ করে। অথৰ্ব্ববেদে যজ্ঞবিধির অতিরিক্ত অন্যান্ত হুক্তাদি স্থান পাইয়াছিল বলিয়া, উহ। তাদৃশ প্রতিষ্ঠাপন্ন হয় নাই । বেদের বিভাগ-কৰ্ত্ত সম্বন্ধে দুইটী বিভিন্ন মত দৃষ্ট হয়। কোথায়ও দেখিতে পাওয়া যায়,— মহর্ষি খেদব্যাস, যুগে যুগে ধৰ্ম্মেরু পাদক্ষয় ও মন্থকদিগের আয়ুঃশক্তির হ্রাস দেখিয়া, বেদের ৰিভাগ করিয়াছিলেন ; BBB BBBBBS BBBB BBBB BB SBBBBBS BSBB BBBBB BBB পাওয়া যায়,-যজ্ঞ-কৰ্ম্মের সুধিবার জন্য অথৰ্ব্ব ঋষি বেদ-বিভাগ করিয়াছিলেন । তিনি যজ্ঞ-কৰ্ম্মের উপযোগী স্বত্তগুলিকে তিন বেদের অন্তভুক্ত করিয়া অন্তাষ্ণ স্বত্তগুলির স্বাতন্ত্র্য-সাধন করেন । যাহার প্রথমোক্ত মতের অমুসরণকারী, তাহারা বলেন,— যঙ্গ-বিধির অনুপযোগী বা অকৰ্ম্মণ্য অর্থ বুঝাইবার জন্য ঋক যজু সাম—এই তিন বেদের অতিরিক্ত সুক্তগুলি অথৰ্ব্ববেদ নামে অভিহিত হইয়াছিল। কিন্তু শেষোক্ত মত-সমর্থনকারিBBB BBDSDBB BBB BBBBBBB BBB BB BBBBB BB BBBB হইয়াছে।’ ফলতঃ, সৰ্ব্ব-প্রকারেই প্রতিপন্ন হয়,—প্রথমে এক বেদ ঋক-ৰজু-সাম তিল অঙ্গে প্রকটমান ছিল । ক্রমশঃ তাহ চারিট স্বতন্ত্র ভাগে বিভক্ত হয় । পরিশেষে, তাহার শাখা-উপশাখা-রূপে অন্যান্স শাস্ত্রাদির অভু্যদয় হইয়াছে। বৰ্ত্তমান কালে যে প্রণালীতে বেদ-সংহিতা সংগৃহীত হইয়াছে, বিশেষতঃ মমুস্থ্যের বুদ্ধি-বৃত্তি যেরূপ বিপরীত ভাব ধারণ করিয়া আছে, তাহাতে বেদের রচয়িতা-সম্বন্ধে মতদ্বৈধ হওয়া আশ্চর্য্যের বিষয় কিছুই নহে । দৃষ্টাস্তস্থলে ঋগ্বেদের কথা উল্লেখ করিতেছি। ঋগ্বেদের স্তোত্রসমূহ দশটা মণ্ডলে বিভক্ত। সেই মণ্ডল-সমুহে বহু রচয়িতা ঋষির নাম দেখিতে পাওয়া যায় । প্রথম ও শেষ মগুলের রচয়িতার সংখ্যা—অনেক গুলি । দ্বিতীয় হইতে নবম পর্য্যন্ত সপ্ত মণ্ডলের রচয়িত। সাত জন ভিন্ন ভিন্ন ঋষির নাম আছে । দ্বিতীয় মণ্ডলের রচয়িতা—গৃৎসমদ ; তৃতীয় মগুলের রচয়িতা—বিশ্বামিত্র ; চতুর্থ মণ্ডলের রচয়িতা—বামদেব ; পঞ্চম মণ্ডলের রচয়িতা—অত্ৰি ; যষ্ঠ মণ্ডলের রচয়িত-ভরদ্বাজ ; সপ্তম মণ্ডলের রচয়িতা—বশিষ্ঠ ; অষ্টম মণ্ডলের রচয়িত —ক ; নৰম মণ্ডলের রচয়িতা-অঙ্গিরা। এত স্পষ্ট করিয়া যখন ভিন্ন ভিন্ন রচয়িতার নাম লিখিত আছে, তখন বেদ-সংহিতা—ঋষিগণের রচনা ভিন্ন লোকে অন্ত আর কি মনে করিতে পারে ? ইহাই স্বাভাবিক । বরং ইহার অধিক অন্য কিছু বলিতে গেলে, BBBBB BBBS BB BBBS BBBBBS BB BDD DDS BBB BBSBB BBBB BBB অপৌরুষেয় ব্রহ্মবাক্য বলিয়। নির্দেশ করিলেন কেন ? অত স্পষ্ট করিয়। যখন রচয়িতাগণের নাম লিখিণ্ড আছে, তখন বেদকে ঋষি-প্রণীত না-বলিবার কারণ কি ? সৰ্ব্বতত্ত্বজ্ঞ বহুদশী শাশ্বকারগণ, এতাদৃশ প্রমাণ সত্বেও, জানিয়া শুনিয়া এইরূপ পরস্পর-বিরোধী মতের জবতারণা করিবেন—ইছাও কদাচ বিশ্বাস হয় না। তবে কেন এমন হইল ? এ বিষয় যুৰিতে হইলে, প্রথমতঃ বুঝিবার আবগুক—বেদ কি, বা বেদে কি আছে ? পূৰ্ব্বেই বেদ রচয়িতা ।