পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৩৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఆtrషి ভারক্তবর্ষ। নাম্ব, অধিকাংশ পুরাণের মতে, শ্রত ( শ্রতসেন) । কিন্তু রামায়ণে র্তাহার পুত্রের নাম– কুকুৎস্থ ; এবং অগ্নিপুরাণে র্তাহার পুত্র "নাভাগ’ নামে প্রসিদ্ধ। নাভাগ, অম্বরীষ, মহষ—এই তিন নৃপতির পর্য্যায়, বংশ-লতায় কত রূপান্তরেই স্থান পাইয়া আছে। রামায়ণে দেখি,— দশরথের পিতামহ নাভাগ, প্রপিতামহ নহুষ, আর বৃদ্ধপ্রপিতামহ অম্বরীষ। ব্ৰক্ষ-পুরাণে এই নাভাগ ও অম্বরীষের নাম দুই স্থলে দৃষ্ট হয়। দুই স্থলেই নাভাগের পুত্র অম্বরী নামে পরিচিত। প্রথমতঃ,—বৈবস্বত মন্থর পুত্রের নাম নাভাগ, তৎপুত্র অম্বরীষ । দ্বিতীয়তঃ, ভগীরথের পৌত্র নাভাগ, তৎপুত্র অম্বরীষ । বিষ্ণুপুরাণে আবার, প্রথমে আছে—মন্ত্র-পুত্রের নাম নভাগ, তাহার পুত্ৰ নাভাগ, তৎপুত্ৰ অম্বরীৰ। অপিচ, বিষ্ণুপুরাণে ভগীরথের পৌত্র ও প্রপৌত্র যথাক্রমে নাভাগ ও অম্বরীষ নামেও অভিহিত। শিবপুরাণ এবং হরিবংশ এ বিষয়ে ব্রহ্মপুরাণেরই অনুসারী । শ্ৰীমন্তাগবতের সহিত বিষ্ণুপুরাণের প্রথম অংশে অভিন্নতা দৃষ্ট হয় বটে ; কিন্তু শেষাংশে সম্পূর্ণ অসামঞ্জস্ত। সেখানে ভগীরথের পৌত্রের নাম—নাভাগ ; তাহার পুত্ৰ—সিন্ধুদ্বীপ। অগ্নিপুরাণে আবার বৈবস্বত মল্লুর পুত্র নাভাগের অম্বরীষ নামক পুত্রের উল্লেখ নাই। সেখানে মতু-পুত্র ধৃষ্টের বংশে অম্বরীষের উৎপত্তি, এবং ভগীরথের পুল্ল ও প্রপৌত্র পর্য্যায়ে যথাক্রমে নাভাগ ও অম্বরীষ বিদ্যমান । কোন বিষয়টার উল্লেখ করিব ? যে বংশের যে নামটার বিষয় উল্লেখ করি না কেন, তাহাতেই এক পুরাণের সহিত অন্য পুরাণের অনৈক্য দেখিতে পাই । কয়েক পৃষ্ঠার বংশ-লত ( ২৯২ পৃষ্ঠ হইতে ৩৯৩ পৃষ্ঠা পৰ্য্যন্ত ) মিলাইয়া দেখিলেই যে কেহ এ অসামঞ্জস্য উপলব্ধি করিতে পরিবেন । মমুর জ্যেষ্ঠ পুত্র ইস্কুকুর বংশ-লতা সম্বন্ধেই এই অসামঞ্জস্য । তাহার অন্তান্ত পুত্ৰগণের বংশ-পৰ্য্যায় বিষয়ে আরও যে কত অসামঞ্জস্ত রহিয়াছে, তাহার নির্ণয় করাই দুঃসাধ্য। রামায়ণে প্রধানতঃ মন্ত্র-পুত্র ইস্কৃাকুর বংশ-বিবরণ উল্লিখিত হইয়াছে। কিন্তু পুরাণ-সমূহে মন্থর অপরাপর পুত্রের বিষয়ও প্রসঙ্গতঃ আলোচনা দেখিতে পাই । শ্ৰীমদ্ভাগবতে মমু-পুত্র দিষ্টের নাম দৃষ্ট হয় । তাহাতে র্তাহার বংশের একটা দীর্ঘ পৰ্য্যায় প্রকটিত আছে। কিন্তু অন্য কোনও পুরাণে দিষ্ট্রের নাম আদৌ উল্লেখ নাই । তবে, বিষ্ণুপুরাণে নেদিষ্ট-বংশের উল্লেখ আছে, এবং সে বংশের সহিত ঐযস্তাগবতের দিষ্ট-বংশের বংশ-লতার অনেকটা মিল দেখিতে পাওয়া যায়। কিন্তু সে দুই বংশ-লতায়ও অনেক অসামঞ্জস্য আছে! এই বংশের মরুত্ত নামক প্রসিদ্ধ নরপতির নাম—বিষ্ণুপুরাণে অষ্টাদশ পৰ্য্যায়ে এবং শ্ৰীমদ্ভাগবতে বিংশ পর্যায়ে দৃষ্ট হয়। কিন্তু তাহার পূর্ব-পুরুষগণের নামে, উভয় পুরাণে, ঘোর পার্থক্য। প্রথমতঃ, দিষ্টের পরবর্তী চতুর্থ পুরুষে, শ্ৰীমদ্ভাগবতে, বংসপ্রতি আছেন ; বিষ্ণুপুরাণে-দিষ্টের পরবর্তী চতুর্থ পুরুৰে প্ৰাংগু আছেন ; ঐমদ্ভাগবতের মতে, বংসপ্রীতির পুত্ৰ – প্ৰাংও। তৎপরেও জনৈক্য ! বিষ্ণুপুরাণে, প্রাংশুর পর, যথাক্রমে — প্রজানি, ক্ষুপ, বিবিংশ, খনিনেত্রী t, অবাঞ্জি, মরুস্ক, নরিস্তম্ভ, দম প্রভৃতির নাম আছে। কিন্তু এমভাগবতে প্ৰাণ্ডের कळू-भूरद्धञ्च द९८* । BBBBBBSBBBS BBS BBBBS BBBBS BBS DDDDS DDDDS অীক্ষিৎ,